২০ বছর পর শিরোপা পুনরুদ্ধার করলো ফ্রান্স। ১৯৯৮ সালে প্রথমবার ফিফা বিশ্বকাপ জয়ের পর ২০১৮ এর চলতি রাশিয়া বিশ্বকাপও নিজেদের করে নিলো ফ্রান্স। ২০২২ সালে আগামী কাতার বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত ফুটবল দুনিয়ায় বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে থাকবে দলটি।

আক্রমণ-পালটা আক্রমণ আর গোল-পালটা গোলে উপভোগ্য এক ফাইনালই উপহার দিলো দুই দল। ফ্রান্সের ৪ আর ক্রোয়েশিয়ার দুই গোলে মোট ৬টি গোল দেখার সুযোগ হয় দর্শককের। ক্রোয়েশিয়ার ভুলে আত্মঘাতি গোল আর হ্যান্ডবলের পেনালটি বাদ দিলে ম্যাচের ভাগ্য হয়তো হতে পারতো অন্য রকম। কিন্তু আপাতত রানারস আপ তকমা নিতেই দেশে ফিরতে হবে ক্রোয়েশিয়ানদের।

ধারাবাহিক খেলায় সবার নজড় কাড়া ক্রোয়েশিয়াকে ৪-২ গোলে হারিয়ে চলতি রাশিয়া বিশ্বকাপের শিরোপা ঘরে তুলল ফ্রান্স। প্রথমার্ধে ২-১ গোলে এগিয়ে থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধে এসে ক্রোয়েশিয়ার জালে আরও দুইবার বল জড়ায় ফ্রান্স।

৫৯ মিনিটে পগবার বাম পায়ের দারুণ শট আর ৬৫ মিনিটে এমবাপে’র গোলে ফ্রান্সের জয় একপ্রকার নিশ্চিতই হয়ে যায়। এর ঠিক চার মিনিট পর ফ্রেঞ্চ গোলরক্ষক লোরিসের ভুল থেকে করা ক্রোয়েশিয়ার ফরওয়ার্ডার মান্ডজুকিচের গোল হারের পরাজয়ের ব্যবধানই কমিয়েছে মাত্র।

নির্ধারিত ৯০ মিনিটের আগে অবশ্য আরও তিনবার গোলের সুযোগ পেয়েছিল ক্রোয়েশিয়া। ৮১ মিনিটে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নেমে ৮২ মিনিটেই গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন ক্রোয়েশিয়ার মার্কো জাকা। তারও এক মিনিট পরে ফ্রী-কিক থেকে সুযোগ পেয়েছিলেন র‍্যাকেটিজ। তবে তা তালুবন্দী করে গোলের সম্ভাবনা থামিয়ে দেন ফ্রেঞ্চ গোলরক্ষক লোরিস।

৮৮ মিনিটে আরও একবার চেষ্টা করেছিলেন র‍্যাকেটিজ। তবে গোল পোস্টের ডান দিকে অনেক বাইরে দিয়ে চলে যায় বল। অথবা বলা ভালো ক্রোয়েশিয়ার বিশ্বকাপই যেন চলে যায়।

শেষমেষ আর কোন গোল না হলে নির্ধারিত ৯০ মিনিট আর অতিরিক্ত ছয় মিনিট পর শেষ হাসি তাই হাসে ফ্রান্স। অভিজ্ঞতার কাছে হার হলো আবেগের।

ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন অ্যান্টোই গ্রিজম্যান।

Previous post সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশি নিহত
Next post শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ ২৭ জুলাই
Close