মালয়েশিয়ার পাহাং প্রদেশের ক্যামেরুন হাইল্যান্ডে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে গণশুনানী ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় তানারতা কাসাডেলা রসা হোটেলের বলরুমে রাষ্ট্রদূত মুহা. শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও শ্রম কাউন্সিলর মো. সায়েদুল ইসলামের পরিচালনায় গণশুনানী ও মতবিনিময় সভা চলে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত।

এসময় উপস্থিত সেবা প্রত্যাশীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন দূতাবাসের কর্মকর্তারা। সেবা প্রত্যাশীদের প্রশ্নের জবাবে লেবার কাউন্সিলর মো. সাইয়েদুল ইসলাম বলেন, যারা রি-হিয়ারিং এর সুযোগ নিয়ে এখনও বৈধ হতে পারেন নাই তারা এই প্রক্রিয়ায় আর বৈধতার সুযোগ পাবে না। তাছাড়া নাম ও বয়স জটিলতার তাৎক্ষণিক সমাধান দূতাবাস থেকে আর দেয়া হবে না। তবে যারা নিয়ম মেনে সংশোধনের জন্য আবেদন করবে তাদের পাসপোর্ট ৪০/৪৫ দিনের মধ্যে সরবরাহ করা হবে।

সভাপতির বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত মুহা. শহীদুল ইসলাম বলেন, কেউ যদি দূতাবাস থেকে সেবা না পায় তবে তারা সরাসরি আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। এমনকি দূতাবাসের কোন কর্মকর্তা যদি ঘুষ দাবি করে তবে সেটাও আমাকে অবহিত করতে পারেন।

তিনি আরও জানান, দূতাবাসের সেবা আরও বেগবান করার লক্ষ্যে নতুন ৩৯ জন কর্মকর্তা-কর্মচারি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তা ছাড়া দূতাবাসের পাশাপাশি প্রত্যেকটি প্রদেশে সেবা প্রত্যাশীদের সেবা দিয়ে আসছে দূতাবাস।

ক্যামেরুন হাইল্যান্ডে কর্মরত প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রদূত বলেন, দেশের সম্মান বজায় রেখে যে দেশে বসবাস করছেন সে দেশের আইন মেনে চলুন। আপনাদের ব্যবহারে-চলনে কর্মক্ষেত্রে আপনাদের সম্মানের পাশাপাশি দেশের সম্মান বাড়বে।
এসময় গণশুনানী ও মতবিনিময় সভায় প্রায় দু-শতাধিক সেবা প্রত্যাশী উপস্থিত ছিলেন।