বিদায় নিতে চলেছে ২০২২ সাল। পুরো বিশ্ব নতুন বছরকে বরণ করতে নিয়েছে নানা প্রস্তুতি। নতুন বছরটি প্রায় সারা দিন ধরে পৃথিবীর চারপাশে শুরু হবে। এসময় বিভিন্ন দেশ তাদের রীতিনীতি এবং উৎসবের মাধ্যমে নতুন বছরকে বরণ করবে।

বিশ্বে সবার আগে নতুন বছরের ছোঁয়া লাগে অস্ট্রেলিয়ায়। ঐতিহ্য ও আধুনিকতার মিশেলে কয়েক মাস ধরে নেয়া হয়েছে প্রস্তুতি। এখন শুধু অপেক্ষা সিডনি হারবারের ঐতিহ্যবাহী আলোর ছটা দেখার। করোনা সংক্রমণ লাগাম টানার পর এবার আরও জাঁকজমকপূর্ণ হবে এই আয়োজন।

অস্ট্রেলিয়ায় সীমান্তগুলো খুলে দেয়ায় সিডনির বর্ষবরণ আয়োজনে ১০ লাখের বেশি মানুষ সরাসরি এবং ৫০ লাখ মানুষ টিভি কিংবা অনলাইন মাধ্যমে তাদের আয়োজনে অংশ নেবে বলে প্রত্যাশা কর্তৃপক্ষের।

ইংরেজী নতুন বছর বরণের অন্যতম আকর্ষণ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের টাইসস্কয়ারের নিউ ইয়ার ইভের আয়োজন। করোনার প্রকোপ কমায় এ বছর জোরেশোরে চলছে উৎসবের প্রস্তুতি। কাউন্টডাউনের জন্য প্রস্তুত ঐতিহ্যবাহী ক্রিস্টাল বল।

এদিকে, অনেক ইউক্রেনীয় হয়ত মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে নতুন বছরকে স্বাগত জানাবেন। তবে এবারও অনাড়ম্বর হচ্ছে তাদের নববর্ষ উদযাপন। ভ্লাদিমির পুতিনের রাশিয়াতেও জমকালো নববর্ষ উদযাপনের তেমন আগ্রহ নেই অনেকের। মেয়র সের্গেই সোবিয়ানিন বাসিন্দাদের নববর্ষ কীভাবে উদযাপন করবেন সে বিষয়ে ভোট দিতে বলার পর মস্কো তার ঐতিহ্যবাহী আতশবাজির প্রদর্শনী বাতিল করেছে।

২০২২ সাল কারও কাছে আনন্দের হলেও কারও কাছে বিষাদের। এই বছর ব্রিটেনের রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথ মারা গেছেন। ব্রাজিলিয়ান ফুটবল আইকন পেলে চলে গেলেন সম্প্রতি। একই সঙ্গে বিশ্বনেতাদের একজন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবেও মারা গেছেন এ বছর।

Previous post নায়ক-নায়িকাদের মনোনয়ন চাওয়া অপরাধ নয়, মাহি প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী
Next post জাতিসংঘে ফিলিস্তিনের পক্ষে ভোট দিল বাংলাদেশ
Close