সরকারের পতন অনিবার্য বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার এক বিবৃতিতে তিনি এই মন্তব্য করেন।

পাবনার ঈশ্বরদীতে ঋণ নিয়ে ফেরত না দেওয়ার মামলায় ১২ কৃষককে গ্রেপ্তার ও নেত্রকোনার বারহাট্টায় কৃষকদলের উদ্যোগে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মধ্যে ধানের বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, ‘আমি এসব ঘটনায় তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও ধিক্কার জানাচ্ছি। পাবনায় কৃষকদের মামলা থেকে মুক্তি ও নেত্রকোনায় হামলায় আহত নেতাকর্মীদের সুস্থতা কামনা করছি।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমান সরকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও দলীয় সন্ত্রাসীদের দিয়ে বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা প্রদান করছে। সরকারের মদদে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপি নেতাকর্মীদের হত্যা, মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার ও শান্তিপূর্ণ সভা-সমাবেশ পণ্ড করাকে নিত্যদিনের কর্মকাণ্ড হিসেবে গণ্য করছে।’

তিনি আরও বলেন, বিএনপির সমাবেশে জনবিস্ফোরণ দেখে আওয়ামী সরকার অস্তিত্ব রক্ষায় এখন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর পুরোপুরি নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। আর সেজন্যই তারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দিয়ে বিরোধী দলগুলোর সভা-সমাবেশসহ বিভিন্ন গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে বেপরোয়া হামলা শুরু করেছে।

নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলার দলীয় কার্যালয়ে কৃষকদলের উদ্যোগে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মধ্যে বোরো ধানের বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে হামলা প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আওয়ামী যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে বারহাট্টা উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক রেজাউল আলম, উপজেলা কৃষকদলের সাধারণ সম্পাদক সুধীন্দ্র চন্দ্র দাস, কৃষকদল নেতা দুলাল মিয়া, সাহাব উদ্দিন, মঈনুল হাসান বাবলু, নিপেন্দ্র চন্দ্রসহ কৃষকদলের অনেক নেতাকর্মীকে গুরুতর আহত করেছে। পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় ঋণ নিয়ে ফেরত না দেওয়ার অভিযোগে ৩৭ কৃষকের নামে দায়েরকৃত মামলায় ১২ কৃষককে গ্রেপ্তারের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

Previous post কাতারে বাংলাদেশ ডে উৎসবে প্রবাসীদের মিলনমেলা
Next post মরক্কোর কাছে ধরাশয়ী ফেভারিট বেলজিয়াম
Close