পাকিস্তানের বিদায়ী সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া বলেছেন, ‘১৯৭১ সালে পূর্ব পাকিস্তানের (বর্তমানে বাংলাদেশ) আলাদা হয়ে যাওয়া সামরিক নয়, রাজনৈতিক ব্যর্থতাই ছিল।’ বুধবার রাওয়ালপিন্ডিতে সেনাবাহিনীর সদর দপ্তরে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এদিন ১৯৭১ সালে তৎকালীন পাক সেনাবাহিনীর পদক্ষেপ ও কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করেন বিদায়ী সেনাপ্রধান। বক্তব্যের শুরুতেই তিনি উল্লেখ করেন, যে বিষয়টি নিয়ে তিনি আলোচনা করছেন, যা বেশিরভাগ মানুষই এড়িয়ে যান।

জেনারেল বাজওয়া বলেন, ‘আমি কিছু তথ্য সংশোধন করে দিতে চাই। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের লড়াই করা সৈন্যের সংখ্যা ৯২ হাজার নয়, ৩৪ হাজার ছিল। বাকিরা সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের ছিলেন। এই ৩৪ হাজার সৈন্য ভারতীয় সেনাবাহিনীর আড়াই লাখ সেনা এবং মুক্তিবাহিনীর দুই লাখ সদস্যের বিরুদ্ধে লড়াই করেন।’

তিনি বলেন, ‘কঠিন প্রতিকূলতা সত্ত্বেও আমাদের সেনাবাহিনী সাহসিকতার সঙ্গে লড়াই করেছে এবং অনুকরণীয় ত্যাগ স্বীকার করেছে। যদিও পূর্ব পাকিস্তানে সেনাবাহিনীর এই আত্মত্যাগকে পাকিস্তান এখনও স্বীকৃতি দেয়নি, যা ভারতীয় সেনাপ্রধান ফিল্ড মার্শাল মানেকশও স্বীকার করেছেন।’

জেনারেল বাজওয়া আরও বলেন, ‘আমি আত্মত্যাগ করা সৈন্যদের অভিবাদন জানাই এবং তা অব্যাহত রাখব। তারা আমাদের বীর এবং তাদের জন্য জাতির গর্ব করা উচিত।’

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীকে ছয় বছর নেতৃত্ব দেওয়ার পর চলতি মাসের শেষের দিকে অবসর যাচ্ছেন জেনারেল বাজওয়া। ২০১৬ সালে তিন বছরের জন্য পাকিস্তানের সেনাপ্রধান নিযুক্ত হয়েছিলেন তিনি। পরে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সংসদে সেনাপ্রধানের মেয়াদ সংক্রান্ত আইন সংশোধনের মাধ্যমে তার মেয়াদ আরও তিন বছর বাড়ানো হয়।

Previous post ওয়াজ মাহফিলে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য বন্ধের নির্দেশনা
Next post নাইজেরিয়ায় ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’
Close