‘আমরা করবো জয়’- এ স্লোগানকে সামনে রেখে প্রবাসেই নতুন প্রজন্মের মাঝে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু’র বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার প্রত্যয়ে গত লেবার ডে উইকেন্ড ২, ৩ ও ৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ তিন দিনব্যাপী ৩৬তম ফোবানা কনভেশন শুরু হয় বারব্যাঙ্ক মেরিয়ট হোটেলের বৃহত্তর কনভেনশন সেন্টারে।

ফোবানা লস এঞ্জেলেসের উদ্বোধক ছিলেন একুশে পদক প্রাপ্ত অভিনয় শিল্পী লায়লা হাসান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একুশে পদক প্রাপ্ত আবৃত্তিকার ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিনেত্রী তারিন।

ঢাকা থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে উদ্বোধনী বক্তব্য দেন পারিকল্পনা মন্ত্রী আব্দুল মান্নান এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি জানান- সরকার প্রবাসীদের কল্যাণে সব সময়ই কাজ করে যাচ্ছেন।

অপরদিকে, পারিকল্পনা মন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নতুন প্রজন্মকে গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

লস এঞ্জেলেস ফোবানার সকল কার্যক্রমে ছিল মুক্তিযুদ্ধের চেতনা। আর এই কারণেই অর্থাৎ চেতনার প্রশ্নে বিরোধ ঘটায় ফোবানার বিভক্তি।

বিভক্তি ফোবানার ঐক্য প্রসঙ্গে চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান বলেন, “আমরা ঐক্যের পক্ষে কিন্তু সে ঐক্যের ভীত হতে হবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায়।”

লস এঞ্জেলেস ফোবানার মূল মঞ্চ সাজানো হয়েছে ‘পদ্মা সেতু’র ছবি দিয়ে। উদ্বোধনী পর্বে প্রার্থনা সঙ্গীতের সাথে নৃত্য পরিবেশন করে নতুন প্রজন্মের মুনজাবিন হাই।

তিনদিনের ৩৬তম ফোবানা কনভেনশনে উৎসর্গ করা হয়েছে জাতির জনকের স্মৃতির প্রতি এবং এ উপলক্ষ্যে কনভেনশন সেন্টারে স্থাপন করা হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’। ফোবানার ৩৫ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম কনভেনশনকে বাঙালি জাতির পিতার স্মরণে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হলো। বঙ্গবন্ধু কর্ণারের সঠিক সমন্বয়কারী সাবেক চেয়ারম্যান জাকারিয়া চৌধুরী বলেছেন- মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ঘিরে ফোবানা সম্মেলন ছিল আমাদের চ্যালেঞ্জ। এক মহল মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরারতে বাঁধদিলে কমিটি তাদের কয়েকজনকে বহিস্কার করতে বাধ্য হয়েছে।

অনুষ্ঠান উদ্বোধনীর পূর্বে ছিল ফোবানার ডিনার পার্টি। ড. সুবর্ণার উপস্থাপনায় উত্তেজিত হয়ে ওঠে উপস্থিত সকলেই। বিভিন্ন স্টেট থেকে আগত নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের পারফরমেন্স দর্শকদের মুগ্ধ করে। মাত্র দু’মাসের প্রস্তুতিতে এই সম্মেলন আদর্শিক ও সাফল্যের দিক থেকে প্রবাসীদের অকুন্ঠু সমর্থনে গুছিয়ে নেওয়া সম্ভব হয়েছে বলে হোস্ট কমিটির প্রেসিডেন্ট জাহিদ হাসান পিন্টু জানান। কনভেনর আবুল ইব্রাহিম জানান, কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্থানের কয়েক ডজন সংগঠনের লোকজন পারফর্ম করেছে লস এঞ্জেলেস ফোবানায়। বাংলাদেশ এবং উত্তর আমেরিকার বেশ কয়েকজন জনপ্রিয় শিল্পীও এসছেন নাচ ও গান পরিবেশনের জন্য।
লস এঞ্জেলেস ফোবানার দ্বিতীয় দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেসনাল ডিষ্ট্রিক ক্যালিফোর্নিয়া ২৭ এর নির্বাচিত জু ডি চু। তিনি বলেন, “বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান উন্নয়ন অভিযাত্রা অব্যাহত রাখতে সব ধরেণের সহায়তার জন্য বাইডেন প্রশানের সঙ্গে কাজ করছি।” এ সময় তিনি কংগ্রেসনাল বাংলাদেশ ককাসের সাথেও থাকার অঙ্ঘিকার করেন। দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানে কংগ্রেসের বক্তব্যের পর ‘জয় বাংলা জাগলেই জয় হয় আমাদের’ শীর্ষক গীতি আলেখ্য পরিবেশনা করে বাংলাদেশ লীগ অব আমেরিকার শিল্পীবৃন্দ।

দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানে দেশ বরেণ্য নজরুল গবেষক ও কণ্ঠশিল্পী লীনা তাপসি খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও কন্ঠশিল্পী তাজুল ইমাম, আরজিন সহ শাহ মাহবুব পুরো অডিটরিয়ামকে মাতিয়ে রেখেছিলেন। নজরুলের উপর সেমিনারের সঞ্চালনায় ছিলেন কবির কিরণ। অংশগ্রহণ করেন, ড. লীনা তাপসী, ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক লাবলু আনসারী ও প্রধান সমন্বয়কারি কাজী মশহুরুল হুদা।

ফোবানার প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী মশহুরুল হুদা, তার কমিটির দুজন কমিশনার আবুল ওয়াহিদ মাহফুজ ও শাহিদা শিকদার হাইকে নিয়ে নতুন এক্সিকিউটিভ কমিটি ঘোষণা করেন।

এজিএম মিটিং এ সর্ব সম্মতিক্রমে কমিটির মেয়াদ দু’বছর করা হয় এবং অতিরিক্ত দুটি পদ বর্ধিত করা হয়। সহ-সভাপতি ও সহ-এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি ফোবানার আগামী দু’বছরের জন্য চেয়ারম্যান মনোনিত হয়েছেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব আতিকুর রহমান ও এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি ড. রফিক খান এবং আগামী ২০২৩ এ ফোবানার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে কানাডার মন্ট্রিয়লে। স্বাগতিক সংগঠন বাংলাদেশ এসোসিয়েশন মন্ট্রিয়ল এবং কনভেনর মনিরুজ্জামান।

ফোবানার পর্দা পড়ার পূর্বমুহুর্তে আন্তর্জাতিক মাইম আইকন জাতিসত্ত্বার মূকাভিনেতা ও বাঙলা মূকাভিনয় গবেষণা কেন্দ্রের মহাপরিচালক কাজী মশহুরুল হুদাকে এক্সিকিউটিভ সদস্য ও সাবেক চেয়ারম্যান আগামী ফোবানার গুড ইউল এ্যাম্বাসেডর হিসেবে ঘোষণা দেন। যিনি বাঙালী জাতীয়তাবাদের ভিত্তিতে মূকাভিনয় শিল্পের নিজস্ব স্বরূপ বিনির্মাণের উপর কাজ করছেন। এ সময় মঞ্চে ছিলেন- চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান, এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারী ড. রফিক খান, হোস্ট কমিটির কনভেনর আবুল ইব্রাহিম, মেম্বর সেক্রেটারি সৈয়দ এম হোসেন, কোষাধক্ষ্য দেওয়ান জামিল পলাশ, প্রেসিডেন্ট জাহিদ হোসেন পিন্টু, সাবেক চেয়ারপার্সন জাকারিয়া চৌধুরী, ফোবানার কোষাধক্ষ্য তুষার, ওয়াশিংটন ডিসির কনভেনর জে আই রাসেল, ৩৭তম ফোবানার কনভেনর মনিরুজ্জামান সহ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মাতিয়ে তোলেন- হৈমন্তি, স্বীকৃতি, এম এ শোয়েব, শিমুল খান, রাজিন, আদনান ও জনপ্রিয় তারকা শিল্পী এস আই টুটুল।

ফোবানার পক্ষ থেকে লস এঞ্জেলেসের প্রবাসী কমিউনিটির জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব মমিনুল হক বাচ্চুকে সম্মাননা প্রদান করে।

Previous post লিটল বাংলাদেশ অধ্যুষিত কমিউনিটি মসজিদ ঘিরে বিভ্রান্তি
Next post ইইউ দূতাবাসের টুইট : নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে সহিংসতা বাড়ছে
Close