ফাঁস হওয়া অডিওতে ছাত্রীদের অকথ্য ভাষায় গালাগালির ঘটনায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে ক্ষমা চাইলেন ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) দিবাগত রাতে ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে ক্ষমা চান তিনি।

ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের প্রতিটি কর্মীর সঙ্গে আমার আত্মার সম্পর্ক। এরা আমার পরিবারের সদস্য ছাড়া অন্য কিছু নয়। একান্ত ব্যক্তিগত পরিবেশে হলেও দায়িত্বশীল জায়গা থেকে অসংযত ভাষার প্রয়োগ আমার অপরাধ হয়েছে বলে আমি স্বীকার করছি। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আমাকে এমন শিক্ষা দেয় না তাই সংগঠনের প্রতি আমি ক্ষমাপ্রার্থী।

এর আগে শুক্রবার রাতে ফাঁস হওয়া অডিওতে তামান্নাকে বলতে শুনা যায়, বুঝিস না পলিটিক্যাল রুমে থাকিস। তোদের লিগ্যাল করাইছে তাতে আমার কি? আমি যদি একটা সিট না দেই, ২০২ থেকে তোদের কোন বাপ সিট দেবে? ম্যাডামেরা দেবে, ক্ষমতা আছে ম্যাডামদের? ম্যাডামদের ক্ষমতা আছে আমাদের রুম থেকে একটা মেয়েকে বের করার। ইডেন কলেজের প্রিন্সিপালেরও ক্ষমতা নেই এই রুম থেকে একটাকে বের করার। একদম গলায় পাড়া দিয়ে ধরতে ইচ্ছা করতেছে। আগামী এক ঘণ্টার মধ্যে যেই রুমে বলব সেই রুমে যাবি। আমার সঙ্গে হেডাম দেখাইতে আসে।

এতে পাশ থেকে একজনকে বলতে শোনা যায় ও তো অসুস্থ বাসায় গেছে। এ সময় ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ২০২ (রুম নং) এ আর কে লিগ্যাল? তোরা লিগ্যাল তাতে আমার কি… গেছে? বল? আমি কি …… তোদের। চ্যাটাং চ্যাটাং করতাছোস! এক পায়ে পাড়া দিমু, আরেক পা টাইনা ধইরা ছিঁড়া ফেলমু। চার মাস হয়ে গেছে, ফাইজলামি শুরু করছিস! এ সময় সুমনা মীর নামে এক মেয়েকে গালমন্দ করতে শোনা যায়।

ইডেন কলেজ প্রশাসনকে চ্যালেঞ্জ করে বলতে শোনা যায়, একটা সিঙ্গেল মেয়ে যদি ওই রুমে এসে কন্ট্রোল করতে চাস, সে হোক নেত্রী, ইডেন কলেজের প্রিন্সিপাল ম্যামও কোনো মেয়ে দিতে পারবে না। এইটুকু সেন্স থাকা উচিত ছিল রুমটা যেহেতু ইডেন কলেজের প্রেসিডেন্ট নিয়ে নিছে, ইডেন কলেজের প্রেসিডেন্টের ওপরে আর কেউ নাই।

Previous post কিছু দুষ্ট লোক তিলকে তাল বানায় : পররাষ্ট্রমন্ত্রী
Next post ‘পররাষ্ট্রমন্ত্রী দলের কেউ না, তার দায় আওয়ামী লীগের নয়’
Close