বাসায় মারিজুয়ানা নামের মাদক রাখার অভিযোগে জাকার্তার বাংলাদেশ দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অব মিশন কাজী আনারকলির বিষয়ে আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করেছে সরকার। ইতোমধ্যে তাঁকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে বুধবার এ তথ্য জানা গেছে।

এ ঘটনায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব মাসফি বিনতে সামসকে প্রধান করে একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আজ থেকেই তদন্ত কমিটি আনুষ্ঠানিক কাজ শুরু করেছে।

তার কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আনারকলির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। কূটনৈতিক দায়িত্ব থেকে আনারকলিকে ফেরত আনার ঘটনা এবারই প্রথম নয়। এর আগেও তাঁকে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে ফেরত আনা হয়।

উল্লেখ্য, বাসায় নিষিদ্ধ মাদক মারিজুয়ানা রাখার অভিযোগে নাইজেরিয়ান বন্ধুসহ আটক হয়েছিলেন বাংলাদেশি কূটনীতিক কাজী আনারকলি। প্রায় ২৪ ঘণ্টা তিনি বন্দি ছিলেন ইন্দোনেশিয়ার মাদক নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের ডিটেনশন সেন্টারে। সেখানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় বিশেষত ইন্দোনেশিয়া সরকারের বদান্যতায় তিনি মুক্তি পান।