অনিবন্ধিতভাবে গ্রিসে বসবাস করে আসা ১৫ হাজার বাংলাদেশিকে বৈধতা দিবে বলে জানিয়েছে সে দেশের সরকার। এরপর প্রতি বছর অন্তত চার হাজার কর্মীও নেবে ইউরোপের দেশটি।

এথেন্সে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ শুক্রবার (২২ জুলাই) এ খবর জানিয়ে বলেন, বৃহস্পতিবার গ্রিসের পার্লামেন্ট এ সিদ্ধান্ত অনুমোদন দিয়েছে।

এর আগে শুক্রবার বিকালে ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, আমাদের অ্যাম্বাসেডর সাহেব জানালেন, গ্রিসের সঙ্গে আলাপ করে এসেছিলাম, গ্রিস রাজি হয়েছে; একটা এগ্রিমেন্ট সই হয়েছে যে, তারা আমাদের ১৫ থেকে ১৮ হাজার ইলিগ্যাল আছেন, তাদেরকে তারা রেগুলারাইজ করবে।

এবং প্রতিবছর ৪ থেকে ৫ হাজার লোক সেখানে নেবে। এটা প্রথম ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশ, তারা এমন কিছুতে রাজি হয়েছে। এটা আমাদের জন্য ভালো খবর।

গত ফেব্রুয়ারিতে গ্রিসের অভিবাসনমন্ত্রী নতিস মিতারাচির ঢাকা সফরে বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর ৪ হাজার কর্মী নেওয়া ও অবৈধদেরকে বৈধ করার বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক সই করে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার গ্রিসের পার্লামেন্ট সেই সমঝোতা অনুমোদন করেছে জানিয়ে রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ বলেন, এখন পরবর্তী প্রসিডিউর নিয়ে কাজ হবে।

গ্রিসে বর্তমানে ৩০ হাজার বাংলাদেশি বসবাস করেন জানিয়ে রাষ্ট্রদূত জানান, এর মধ্যে ১২ হাজার আছেন বৈধ। বাকি ১৮ হাজার ‘আনডকুমেন্টেড’। তাদের মধ্যে ১৫ হাজার সমঝোতার অনুযায়ী বৈধতা পাবেন।

ফেব্রুয়ারিতে সমঝোতা স্মারক সইয়ের পর প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, সমঝোতা স্মারকের আওতায় প্রতিবছর ৪ হাজার নতুন কর্মীকে সেদেশে কাজ করার সুযোগ দেবে। তাদেরকে ৫ বছর মেয়াদি অস্থায়ী ’ওয়ার্ক পারমিট’ দেওয়া হবে।

Previous post কে-টু চূড়ায় প্রথম বাংলাদেশি ওয়াসফিয়া নাজরীন
Next post ইতালি যাওয়ার সুবিধা পাবে ৩০০০ বাংলাদেশি
Close