অবশেষে বহু আলোচিত যুগান্তকারী আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিলে শনিবার স্বাক্ষর করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। বৃহস্পতিবারই মার্কিন সিনেটে পাশ হয়েছিল বিলটি। এরপর বিলটির ব্যাপারে শুক্রবার হোয়াইট হাউসের চূড়ান্ত সম্মতিও দিয়েছিল। এবার বাইডেনের স্বাক্ষরের ফলে বিলটি আইনে পরিণত হল। খবর রয়টার্সের।

ইউরোপে গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক বৈঠকে যোগ দিতে যাচ্ছেন বাইডেন। হোয়াইট হাউস ছাড়ার আগে বিলে স্বাক্ষর করেন তিনি। স্বাক্ষরের পর বাইডেন জানান, এই বিল আমি যা চেয়েছিলাম তার সবটা করতে পারবে না। কিন্তু এতে সেই পদক্ষেপগুলো রয়েছে যার কথা আমি দীর্ঘ সময় ধরে বলে আসছি। এটি জীবন বাঁচাবে।

তিনি আরও বলেন, আমি জানি এখনও অনেক কাজ বাকি। কিন্তু আমি আশা ছাড়ছি না। আজকের দিনটি একটি ঐতিহাসিক দিন। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদেও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিল পাশ হয়।

প্রতিনিধি পরিষদে শুক্রবার ২৩৪-১৯৩ ভোটে বিলটি পাশ হয়। এর মধ্যে ১৪ রিপাবলিকান এমপিও ভোট দেন। ক্ষমতাসীন দল ডেমোক্র্যাটের সব এমপিই বিলটির পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিলটি ৬৫-৩৩ ভোটে পাশ হয়। বিলটির পক্ষে ১৫ রিপাবলিকান সিনেটও ভোট দেন। বিলের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ৩৩ জন।

এটি প্রায় ৩০ বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে পাস হওয়া সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিল। এর মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কয়েক দশকের মধ্যে প্রথমবারের মতো কোনো আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিল ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান দুই পক্ষ থেকেই সমর্থন পেয়েছে। এর আগে দেখা গেছে, যখনই আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনকে শক্তিশালী করার প্রশ্ন আসত, তখনই তাতে বাধা দিত রিপাবলিকান পার্টি।

প্রসঙ্গত, ১৮ বছর বয়স হলেই বন্দুক কিনতে পারেন সাধারণ মানুষ। সেই নিয়ম বদলের জন্য গত কয়েক সপ্তাহ ধরে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করছেন মার্কিন নাগরিকরা। অবিলম্বে এই নিয়ম পালটে দিক সরকার, এই দাবিতে প্রায় হাজার মানুষ মিছিল করেন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রান্তে।

Previous post চীনকে টেক্কা দিতে প্রশান্ত মহাসাগর ঘিরে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন জোট
Next post পদ্মা সেতুর বর্ণিল উদ্বোধন, দুই প্রান্তে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস
Close