সিঙ্গাপুরে কাজ করার সময় দেয়াল চাপা পড়ে ৪১ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি শ্রমিক নিহত হয়েছেন। গত ১০ জুন তিনি দেয়াল চাপায় মারা যান বলে বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুরের স্থানীয় দৈনিক দ্য স্ট্রেইট টাইমসের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, দুর্ঘটনার পরপরই তাকে দেয়ালের নিচ থেকে উদ্ধার করেন সিঙ্গাপুর সিভিল ডিফেন্স ফোর্সের উদ্ধারকারীরা। পরে ঘটনাস্থলেই তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় বলেছে, ঘটনার দিন স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তাই হোয়ান হাইটসের দুর্ঘটনার ব্যাপারে তাদের জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার এই দুর্ঘটনার তথ্য প্রকাশ করেছে সিঙ্গাপুরের ওয়ার্কপ্লেস সেইফটি অ্যান্ড হেলথ (ডব্লিউএসএইচ) কাউন্সিল। ডব্লিউএসএইচের তথ্য প্রকাশের পর স্ট্রেইট টাইমসের এক প্রশ্নের জবাবে দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন, সাধারণ নিরাপত্তামূলক পদক্ষেপ হিসেবে যেকোনো নির্মাণ কাজের শুরুতে নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতি অনুসরণ করা উচিত।

তিনি বলেছেন, বিও হক ইঞ্জিনিয়ারিং নামের মালিকের অধীনে কাজ করতেন বাংলাদেশি ওই শ্রমিক। সেখানে তার নিয়োগকর্তা ছিলেন স্যাম উ কোম্পানি।

বাংলাদেশি এই শ্রমিকের প্রাণহানির ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে সিঙ্গাপুরের মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়। দুর্ঘটনার পর ওই স্থাপনার নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বছরের এই সময়ে সিঙ্গাপুরে কর্মক্ষেত্রে আহত হওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে সতর্ক করে দিয়েছে ডব্লিউএসএইচ। একই সঙ্গে ঝুঁকি এবং দুর্ঘটনা রোধে সংশ্লিষ্ট শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। চলতি বছরের এখন পর্যন্ত সিঙ্গাপুরে এ ধরনের ২৬টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। যা ২০১৬ সালের পর একই সময়ে সর্বোচ্চ।

এর আগে, সিঙ্গাপুরের মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় বলেছিল, এ বছরের প্রথম চার মাসে কর্মক্ষেত্রে আহত হওয়ার দুই শতাধিক ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ক্ষুদ্র ও মাঝারি আকারের স্থাপনায় নির্মাণ কাজে নিযুক্ত দুর্ঘটনার শিকার শ্রমিকদের ৬৫ শতাংশই নিহত অথবা বড় ধরনের জখম হয়েছেন।

Previous post মাত্র ৫ দিন চলার মত জ্বালানি আছে শ্রীলঙ্কার
Next post যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দফতরের গুরুত্বপূর্ণ পদে ভারতীয় বংশোদ্ভূত রাধা আয়েঙ্গার
Close