দুই প্রান্তের ৪১৫টি ল্যাম্পপোস্টে বাতি জ্বালানোর মাধ্যমে প্রথমবারের মতো আলোকিত হলো পুরো পদ্মা সেতু। মঙ্গলবার (১৪ জুন) সন্ধ্যা পৌনে ৭ টার দিকে বিদ্যুৎ-সংযোগের মাধ্যমে মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তের সবকটি ল্যাম্পপোস্টে একসঙ্গে বাতি জ্বলে ওঠে। এতে মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়া প্রান্ত থেকে শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার নাওডোবা প্রান্ত পর্যন্ত পুরো পদ্মা সেতুতে ঝলমল করে জ্বলে উঠে আলো।

শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি জুলফিকার রহমান বলেন, শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির দেওয়া বৈদ্যুতিক সংযোগের মাধ্যমে এই প্রথম জাজিরা প্রান্তের ২১০টি ল্যাম্পপোস্টে পরীক্ষামূলকভাবে বাতি জ্বালানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পদ্মা সেতুতে ৪১৫টি ল্যাম্পপোস্ট বসানো হয়েছে। মূল সেতুতে রয়েছে ৩২৮টি ল্যাম্পপোস্ট। জাজিরা প্রান্তের উড়ালপথে (ভায়াডাক্ট) ৪৬টি এবং মাওয়া প্রান্তের ভায়াডাক্টে বসানো হয়েছে ৪১টি ল্যাম্পপোস্ট। বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর প্রথম পিলার থেকে ৩ দশমিক সাড়ে ৭ কিলোমিটার বিদ্যুতের লাইন সংযুক্ত করে দিয়েছে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং জোনাল অফিস (পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি)। আর শরীয়তপুরে জাজিরা নাওডোবা প্রান্ত থেকে ৩ দশমিক সাড়ে ৭ কিলোমিটার সেতুতে অর্ধেক বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়েছে শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি।

সোমবার (১৩ জুন) সন্ধ্যা ৭টা ১০ মিনিটে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে বাতি জ্বালানো হয়। এ নিয়ে গত ৭ দিনে পর্যায়ক্রমে ৪১৫টি বাতি জ্বালানোর মাধ্যমে স্ট্রিট লাইটের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শেষ হয়েছে।

Previous post জাতিসংঘের কার্যক্রমে যুক্ত হলো বাংলা ভাষা
Next post সৌদি সফরে যাচ্ছেন বাইডেন, সাক্ষাৎ করবেন যুবরাজের সঙ্গে
Close