যুক্তরাজ্যে নোয়াখালী সমিতি ইউকের উদ্যোগে নানা আয়োজনের মাধ্যমে উদযাপিত হয়েছে নোয়াখালী উৎসব ২০২২।

লন্ডনের রয়্যাল রিজেন্সি হলে ১২ জুন স্থানীয় সময় বেলা ১১টায় উদ্বোধন হয় উৎসবের। রাত ১১টায় শেষ হয় আয়োজন। এদিন যুক্তরাজ্যে বসবাসরত নোয়াখালীর মানুষেরা দিনভর আনন্দ-উৎসবে পার করেন।

অনুষ্ঠানে নোয়াখালীর ইতিহাস, ঐতিহ্যের ওপর নির্মিত তথ্যবহুল বিশেষ ডকুমেন্টারি প্রদর্শিত হয়।

পুরো অনুষ্ঠানের উপস্থাপনায় ছিলেন আঞ্জুমান মুন্নি ও মিনহাজ খান।

অনুষ্ঠানে যোগ দেন স্থানীয় রাজনীতিবিদ, বেশ কয়েকজন এমপি, মেয়র, কাউন্সিলরবৃন্দ। যোগ দেন সদ্য নির্বাচিত টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল থেকে নির্বাচিত নির্বাহী মেয়র লূতফুর রহমান।

যুক্তরাজ্যে সাম্প্রতিক স্থানীয় কাউন্সিল নির্বাচনে বৃহত্তর নোয়াখালী অঞ্চলের বেশ কয়েকজন নির্বাচিত কাউন্সিলর, মেয়র, মুক্তিযোদ্ধা ও কমিউনিটিতে অবদান রাখা অনেক ব্যক্তিকে ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা জানানো হয়। এছাড়াও শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়, মেধাবী শিশুদের মাঝে পুরষ্কারও বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নিয়ে বক্তারা নোয়াখালীর ২০০ বছর ধরে চলা আসা ইতিহাস, ঐতিহ্যকে স্মরণ করেন। এই আয়োজন ঘিরে তারা বেশ আনন্দিত ও উচ্ছাস প্রকাশ করেন।

আলোচনা সভা শেষে ফ্যাশন ডিজাইনার শারমিন মৌয়ের পরিচালনায় বাংলাদেশি ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরে ফ্যাশন শো অনুষ্ঠিত হয়। এরপর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশনা করেন বাংলাদেশ থেকে সংগীত শিল্পী ফাহমিদা নবী এবং যুক্তরাজ্যের স্থানীয় বেশ কয়েকজন শিল্পী।

আয়োজক নোয়াখালী সমিতি ইউকের সভাপতি আব্দুর রব, সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর, নোয়াখালী উৎসব উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক আব্দুল হক রাজ, প্রধান সমন্বয়কারী হুমায়ুন কবির জাহাঙ্গীর, সদস্য সচিব মোহাম্মদ আখতার, এম এহোসেন নিজাম ও আলাউদ্দিন রাসেল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

আয়োজকরা বলেন, নোয়াখালীর ঐতিহ্যের ২০০ বছরকে স্মরণীয় করে রাখতে বিলেতে বসবাসরত নোয়াখালীবাসীকে নিয়ে একটি স্মরণীয় দিন হয়ে থাকবে আজকের এই আয়োজনটি। এছাড়াও যুক্তরাজ্যে বেড়ে ওঠা তরুণ প্রজন্মের কাছে নোয়াখালীর নাম ইতিহাস, সংস্কৃতি, গৌরব ও ঐতিহ্যের সাথে পরিচিত করিয়ে দিতে পারা আমাদের আয়োজনের অন্যতম স্বার্থকতা।

দিনভর অনুষ্ঠান আয়োজন শেষে র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

Previous post মিশিগানে বাংলাদেশি প্রবাসীদের সঙ্গে পুলিশের মতবিনিময়
Next post আমাদের প্রাণের পদ্মা সেতু
Close