কুয়েতে বৈশাখী মেলায় ১৫টি দেশের রাষ্ট্রদূত ও দেশি-বিদেশি অসংখ্য দর্শকের উপস্থিতিতে এক টুকরো বাংলাদেশ দেখা গেল আব্বাসিয়া টুরিস্টিক পার্ক চত্বরে। গতকাল শুক্রবার কুয়েতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দেশ-বিদেশের অসংখ্য অতিথির সমাগম ঘটে সেখানে।

ভারত, নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও ভুটানসহ বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত এবং কূটনৈতিকসহ অসংখ্য প্রবাসীর অংশ গ্রহণে বর্ষবরণ করা হয়। এদিন সকালে কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রূদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান উদ্বোধনীর সময় প্রবাসী বাঙালিরা ‘এসো হে বৈশাখ’ গানের বাংলা নববর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠান শুরু করেন।

এরপর বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও কূটনৈতিকসহ প্রবাসীদের নিয়ে বৈশাখী শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে মঞ্চে উপস্থিত হন কুয়েতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত। এছাড়া এদিন ছোটদের আসর যেমন খুশী তেমন সাজো, বৈশাখী শোভা যাত্রা, ছড়া ও কবিতা, গীতি নকশা, নৃত্য ও ব্যান্ড সঙ্গীতসহ আরো অনেক আয়োজন ছিল।
বাঙালির ঐতিহ্য পান্তা ইলিশ, হরেক রকমের ভর্তা ও পিঠাসহ আরো অনেক বাঙালি খাবারে ভরপুর স্টল ঘুরে দেখার পাশাপাশি ঐতিহ্যবাহী দেশিও খাবারের স্বাদ গ্রহণ করেন বিদেশি অতিথিরা।

দীর্ঘ দুই বছর পর আবারও বাংলা বর্ষবরণের উচ্ছ্বাসে মেতে ও উঠেন কুয়েত প্রবাসীরা। আব্বাসিয়া টুরিস্টিক পার্ক চত্বরে ঋতু বৈচিত্রের দেশ বাংলাদেশের কৃষ্টি ও সংস্কৃতিকে প্রকাশ করতে কোন রকম কৃপনতা করা হয়নি। বাংলাদেশ দূতাবাসের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং বাংলাদেশ কমিউনিটির উদ্যোগে শুক্রবার সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত মরুরদেশ কুয়েতে দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার অনুষ্ঠিত হয়।