যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপসহ পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে রাশিয়া বলেছে, এসব নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হলে ইউক্রেনে আটকেপড়া খাদ্যশস্য বিদেশে রপ্তানির সুযোগ করে দেওয়া হবে। ক্রেমলিনের ডেপুটি পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ আহ্বান জানিয়েছেন। সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে আজ বুধবার এ তথ্য দেওয়া হয়।

এ আহ্বানকে আসন্ন সম্ভাব্য বৈশ্বিক খাদ্য সংকট মোকাবিলার জন্য নেওয়া পদক্ষেপ হিসেবে উল্লেখ করেছেন রাশিয়ার ডেপুটি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্দ্রে রুদেঙ্কো।

বিশ্ব খাদ্য চাহিদার বড় অংশের যোগান দিয়ে থাকে ইউক্রেন। রাশিয়ার আগ্রাসনের কারণে ইউক্রেনে বিপুল পরিমাণ খাদ্যশস্যের মজুত আটকা পড়েছে। ইউক্রেনের বন্দরগুলো বন্ধ করে রেখেছে রাশিয়া।

রুশ ডেপুটি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্দ্রে রুদেঙ্কো বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হলে রাশিয়া ইউক্রেনের বন্দরগুলো থেকে খাদ্যের চালান বিদেশে পাঠানোর সুযোগ দিতে প্রস্তুত।’

গতকাল মঙ্গলবার ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) অভিযোগ করে বলে, খাদ্য সরবরাহকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে রাশিয়া। বৈশ্বিক খাদ্য পরিস্থিতিকে বেকায়দায় ফেলতে চাইছে রাশিয়া।

এর আগে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছিল, যে বৈরীতা বিরাজমান রয়েছে, এমনটি চলতে থাকলে বিশ্বব্যাপী খাদ্যের বাজার চড়া হতে থাকবে।

Previous post শনিবার পর্যন্ত যু্ক্তরাষ্ট্রের জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে
Next post তেল বিক্রিতে রাশিয়ার সর্বোচ্চ রেকর্ড
Close