ন্যাটোর সদস্য পদে সুইডেন ও ফিনল্যান্ডকে অনুমোদন দেবে না তুরস্ক। গতকাল সোমবার আংকারায় এক সংবাদ সম্মেলনে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান এ কথা বলেছেন। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন আজ মঙ্গলবার এ তথ্য জানায়।

এরদোয়ান বলেন, “প্রথমত যারা আমাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয় তাদের ন্যাটোর সদস্যপদে ‘হ্যাঁ’ বলবো না আমরা। কারণ তারা ন্যাটোয় ঢুকলে তুরস্ক নিরাপত্তা সংস্থাটিতে থাকতে পারবে না।’

সংবাদ সম্মেলনে এরদোয়ান সাফ বলে দিয়েছেন, ‘তুরস্ককে রাজি করাতে ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের প্রতিনিধিদের আমাদের দেশে আসারও দরকার নেই।’

যদিও এরই মধ্যে ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের প্রতিনিধিরা তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কয়েক দফায় বৈঠক করেছেন। এরদোয়ান বলেছেন, ‘সন্ত্রাসী সংগঠনের বিরুদ্ধে আসলে তাদের কোনো সুনির্দিষ্ট অবস্থান নেই।’

এরদোয়ান আরও বলেন, সুইডেন হচ্ছে সন্ত্রাসী সংগঠনের ঘাঁটি। এরা পার্লামেন্টে সন্ত্রাসীদের কথা বলার সুযোগ দেয়। সন্ত্রাসীদের তারা বিশেষভাবে আমন্ত্রণ জানিয়ে থাকে। এমনকি তাদের পার্লামেন্টে পিকেকেপন্থি সদস্যও রয়েছে। তাদেরকে কীভাবে বিশ্বাস করব আমরা।’

গত সপ্তাহে এরদোয়ান বলেন, ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের ন্যাটোয় যোগদানে কোনো ইতিবাচক কিছু দেখছেন না তিনি। দুই দেশেই কুর্দি ‘সন্ত্রাসী গোষ্ঠী’র বাসস্থল রয়েছে বলে অভিযোগ করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট।

উল্লেখ্য, তুরস্কের একটি অঞ্চল নিয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের লক্ষ্য নিয়ে কয়েক দশক ধরে কাজ করছে কুর্দিশ ওয়ার্কার্স পার্টি (পিকেকে)। তাদের স্বশস্ত্র বাহিনীও রয়েছে। তুরস্ক সরকার বলে আসছে, পিকেকে একটি সন্ত্রাসী সংগঠন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নও (ইইউ) একে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে।