মার্কিন ভোগ্যপণ্যের দাম প্রত্যাশার চেয়ে বেড়েছে বেশি। বুধবার (১১ মে) মার্কিন সরকার প্রকাশিত ভোগ্যপণ্যের সূচক থেকে দেখা যায়- এপ্রিল মাস পর্যন্ত গত এক বছরে ভোগ্যপণ্যের দাম বেড়েছে শতকরা ৮.৩ ভাগ। এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ইউ এস টুডে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আমেরিকায় মুদ্রাস্ফীতি গত ৪০ বছরের মধ্যে বর্তমানে সর্বোচ্চ পর্যায়ে রয়েছে। গত ১১ মাস ধরে মুদ্রাস্ফীতি শতকরা ৫ ভাগেরও বেশি বেড়েছে

প্রকাশিত পণ্যমূল্যের সূচক থেকে জানা যাচ্ছে- আমেরিকায় যেসব পণ্যের দাম সবচেয়ে বেশি বেড়েছে তার তালিকায় রয়েছে বাসা ভাড়া, খাদ্য, বিমান ভাড়া, নতুন গাড়ি এবং গ্যাস। মঙ্গলবার অটোমোবাইল অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, দেশে গ্যাসোলিনের দাম রেকর্ড ছুঁয়েছে। তবে অন্য দেশের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে

ভোগ্যপণ্যের দাম যখন এভাবে দুরন্ত গতিতে বেড়ে চলেছে তখন ব্যুরো অব লেবার স্ট্যাটিস্টিক বলছে, কর্মজীবী মানুষের ঘণ্টাপ্রতি আয় গড়ে ২.৬ ভাগ কমেছে। দেশে মুদ্রাস্ফীতি এবং নিত্যপণ্যের দামের রেকর্ড সৃষ্টি হলেও চলমান অর্থনৈতিক সংকট নিরসনের ক্ষেত্রে হোয়াইট হাউজের পক্ষ থেকে তেমন কোনো উদ্যোগ নেই। ফলে সাধারণ মার্কিন নাগরিকদের যথেষ্ট উদ্বেগের মধ্যে দিন কাটাতে হচ্ছে। করোনা মহামারীর কারণে জো বাইডেনের সরকার যে ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের প্রণোদনা প্যাকেজ দিয়েছে তাতে এই মুদ্রাস্ফীতি আরও বেড়েছে বলে অর্থনীতিবিদরা মনে করছেন।

Previous post নিউইয়র্কে বাংলাদেশি ছাত্রীকে ধাক্কা, ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত্যু
Next post যুক্তরাষ্ট্রের পুয়ের্তো রিকোর কাছে নৌকা উল্টে ১১ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু
Close