মানবপাচারের অভিযোগে ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থেকে এক নারীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। অভিযোগ রয়েছে, ওই নারীর তার স্বামীর মাধ্যমে ড্যান্স বারে চাকরি দেওয়ার নামে ৪০ জন নারীকে অবৈধভাবে দুবাই পাঠিয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে কেরানীগঞ্জ থেকে অনামিকা আক্তার কাকলী (২৩) নামের ওই নারীকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

র‌্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীণা রানী দাস জানিয়েছে, গ্রেপ্তার নারীর স্বামী রফিকুল ইসলাম রানা (৩৪) বর্তমানে দুবাইয়ে বসবাস করছে। সে দীর্ঘদিন ধরে দেশ থেকে নারী পাচারের সাথে জড়িত। স্বামী ও স্ত্রীর এ চক্র গত দুই বছরে ৪০ জন নারীকে দুবাই পাঠিয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, কাকলী দেশে থেকে বেকার যুবতীদের উচ্চ বেতনে ড্যান্স বারে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রলোভন দেখাত। এরপর তার স্বামী দুবাই হতে ভ্রমণ ভিসা ও টিকেটের ব্যবস্থা করে দেয়। এজন্য ভুক্তভোগীদের কোনো খরচ বহন করতে হয় না। বিদেশ যাওয়ার পর তার পারিশ্রমিক হতে খরচের টাকা তুলে নেওয়া হয়। ড্যান্স বারে কাজ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও দুবাই যাওয়ার পর পাচারকৃত নারীদের বিভিন্ন হোটেলে অসামাজিক কাজ করতে বাধ্য করা হত। কেউ এতে আপত্তি জানালে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করা হত।

অভিযোগকারী এক ভুক্তভোগীর তথ্যের ভিত্তিতে এ চক্রকে আটক করা হয়েছে বলে র‌্যাব কর্মকর্তা জানান,গত বছর নভেম্বরে ভুক্তভোগী যুবতী ভ্রমণ ভিসায় দুবাই যান। সেখানে যাওয়ার পর তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছেন বুঝতে পারলে তিনি দেশে ফিরে আসতে চান। তখন ওই চক্র তাকে দুবাইয়ে আটক রেখে অসামাজিক কাজ করতে বাধ্য করে।

গ্রেপ্তার কাকলীর বিরুদ্ধে যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা করা হয়েছে বলে জানান বীণা রানী।

Previous post ফিলিপিন্সে বাংলাদেশিকে হত্যার অভিযোগে ‘ভাড়াটে খুনি’ গ্রেপ্তার
Next post টানা দ্বিতীয় বার ব্রিটেনের কাউন্সিলর বাংলাদেশি নাজমা
Close