কিউবার রাজধানী হাভানার হোটেল সারাতোগায় ভয়াবহ বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২২ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৭৪ জন।

শনিবার (০৭ মে) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, শুক্রবার দেশটির ঐতিহাসিক পাঁচ তারকা হোটেল সারাতোগায় ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। হোটেলটি কিউবা সরকারের পুরোনো কংগ্রেস ভবনের বিপরীতে অবস্থিত।

বিবিসি জানায়, হোটেলের বাইরে পার্ক করে রাখা একটি গ্যাস ট্যাংকার হঠাৎ জ্বলে ওঠে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

পাঁচতলা বিশিষ্ট বিলাসবহুল সারাতোগা হোটেলটি করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল। এ সংকট কাটিয়ে আগামী চার দিনের মাথায় এটি পুনরায় চালু করার কথা ছিল। এ বিস্ফোরণের ফলে আপাতত হোটেলটি চালু করা যাচ্ছে না বলেই ধরা হচ্ছে। কারণ বিস্ফোরণের ফলে এর বাইরের দেয়ালের বেশির ভাগ অংশ বিধ্বস্ত হয়েছে।

এদিকে ধ্বংসাবশেষের নিচে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারে কাজ চলছে। আর আহতদের নিকটবর্তী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

অন্যদিকে বিস্ফোরণের পরপরই নিরাপত্তার খাতিরে হাভানার ঐতিহাসিক ভবনগুলো ঘিরে ফেলেছিলেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

কিউবার প্রেসিডেন্সি জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে একজন গর্ভবতী মহিলা ও একটি শিশু রয়েছে।

এরআগে স্থানীয় সময় শুক্রবার (৬ মে) বিকেলে একাধিক টুইট বার্তায় প্রেসিডেন্সি জানিয়েছে যে প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করা হচ্ছে যে হোটেলের গ্যাস লিকের কারণে এই বিস্ফোরণ ঘটেছে। এর আগে জানানো হয়েছিল বিস্ফোরণের পর ১৩ জন নিখোঁজ রয়েছেন।