বেলারুশের সশস্ত্র বাহিনী বুধবার হঠাৎ করে বড় আকারের মহড়া শুরু করার পর দেশটি রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে যোগ দেবে কিনা তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে। তবে বেলারুশের ইউক্রেন যুদ্ধে যোগ দেওয়ার কোনো ইঙ্গিত মেলেনি বলে পেন্টাগনের প্রেস সেক্রেটারি জন কিরবি জানিয়েছেন। শুক্রবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

বেলারুশের সশস্ত্র বাহিনীর ওই মহড়া নিয়ে সাংবাদিকদের কিরবি জানান, ইউক্রেন যুদ্ধে বেলারুশ সরাসরি জড়িত হতে চায় এমন কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি।

যুক্তরাষ্ট্র ৯ মে নিয়ে রুশ বাহিনীর আচরণে পরিবর্তন বা হামলায় ‘আক্রমণাত্মক গতি’ দেখতে পাচ্ছে না বলেও নিশ্চিত করেন কিরবি।

প্রসঙ্গত, ইউক্রেনের প্রতিবেশী দেশ বেলারুশের সশস্ত্র বাহিনী নিজেদের যুদ্ধ প্রস্তুতি যাচাই করার জন্য বুধবার হঠাৎ করে মহড়া শুরু করেছে।

ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের পটভূমিতে বেলারুশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই মহড়া প্রতিবেশী দেশ বা সাধারণভাবে ইউরোপীয় সম্প্রদায়ের জন্য কোনো হুমকির কারণ হবে না।

সরাসরি রাশিয়ার পক্ষ নিলেও ইউক্রেন যুদ্ধে জড়ানোর কোনো ইচ্ছা নেই বলে জানিয়েছে আসছে বেলারুশ।

এর আগে ইউক্রেন যুদ্ধে জড়ানো নিয়ে ভুয়া খবরের বিষয়ে শান্তভাবে প্রতিক্রিয়া দেখানোর আহ্বান জানিয়ে বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো বলেছিলেন, আমি বহুবার বলেছি, ইউক্রেনে লড়াই করার কোনো পরিকল্পনা আমাদের নেই। কিন্তু এ বিষয়টি বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে। কারণ এটি এখন সবচেয়ে গরম খবর।

তিনি বলেছিলেন, জিনগতভাবে বেলারুশের জনগণ যুদ্ধ সহ্য করে না। তাই আমাদের শান্তভাবে প্রতিক্রিয়া জানাতে হবে।

Previous post নোয়াখালীতে প্রবাসীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা, আটক ৩
Next post প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেস সচিব পেল হোয়াইট হাউস
Close