আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের ব্যাপ্তি বাড়ানো ও বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে এবার মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবে ‘রোড শো’ হতে যাচ্ছে। আগামী ১৬ থেকে ২৩ জুন জেদ্দা, রিয়াদ ও দাম্মাম শহরে এ রোড শো হবে।

বরাবরের মতোই শেয়ারবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) উদ্যোগে হবে এ রোড শো।

বাংলাদেশের শেয়ারবাজারসহ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ টানতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে দুবাইতে গত ৯ মার্চ ও আবুধাবিতে ১০ মার্চ ‘ইনভেস্টমেন্ট ফ্ল্যাশ মব: নেটওয়ার্কিং ডিনার’ হয়। আগামী ১৮ ও ১৯ মে কাতারের রাজধানী দোহায় রোড শো হবে।

প্রথম দফায় সংযুক্ত আরব আমিরাতে, দ্বিতীয় দফায় যুক্তরাষ্ট্রে, তৃতীয় দফায় সুইজারল্যান্ড ও চতুর্থ দফায় যুক্তরাজ্যে সফলতার সঙ্গে রোড শো করেছে বিএসইসি। পঞ্চম দফায় কাতারে রোড করার পর সৌদি আরব, সিঙ্গাপুর, জার্মানি, কানাডা, রাশিয়া, ইতালি, হংকং, জাপান, মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে ধারাবাহিকভাবে রোড শো আয়োজন করার পরিকল্পনা নিয়েছে বিএসইসি।

সৌদি আরবের রোড শো’তে বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তি বিনিয়োগকারী এবং স্টেকহোল্ডাররা অংশ নেবেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে আগত অতিথিরা বিভিন্ন সেক্টর নিয়ে বক্তব্য রাখেন। সেখানে বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সুযোগ-সুবিধা, বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, সরকারের বিনিয়োগবান্ধব নীতি, শেয়ারবাজার ও সার্বিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতি এবং এফডিআইর বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের সহযোগিতা অতিথিদের সামনে তুলে ধরা হবে।

এছাড়া, দেশের শেয়ারবাজারে বিনিয়োগে আগ্রহী করে তুলতে বিনিয়োগ সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরা হবে। বিশেষ করে, প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীরা কিভাবে শেয়ারবাজারে সরাসরি বিনিয়োগ করবেন তার কৌশল ও সার্বিক নিরাপত্তার বিষয় তুলে ধরা হবে। দেশের শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের উপযুক্ত স্থান হিসেবে চিহ্নিত করার জন্য বিভিন্ন দেশ ও শহরগুলোতে ধারাবাহিকভাবে রোড শো করার পরিকল্পনা করেছে বিএসইসি।

এবার সৌদি আরবের রোড শো’তে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বে অংশ নেবেন কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এছাড়া, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা), বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ (বেপজা), সৌদি আরবে বাংলাদেশের হাইকমিশনার, বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি, বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিনিধি, শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টসহ বিভিন্ন খাতের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি রোড শো’তে উপস্থিত থাকবেন।

সংশ্লিষ্টদের মতে, সৌদি আরবে সম্পদশালী অনেক বাংলাদেশি আছেন। যাদের প্রচুর অলস অর্থ আছে। কিন্তু, তারা বিনিয়োগ করার মতো কোনো উপযুক্ত জায়গা খুঁজে পান না। যথাযথ পরামর্শ-সহায়তা দিলে প্রবাসীদের সুনিশ্চিত বিনিয়োগের পরিবেশ তৈরি হবে। তাদের সঞ্চিত অর্থ শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের মাধ্যমে দেশের শিল্পায়নে কাজে লাগানোর সুযোগ রয়েছে। সৌদি আরবে অবস্থানরত বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের সুযোগ করে দিতে আরও ডিজিটাল বুথ চালু করা যেতে পারে। এতে প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীরা সরাসরি শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ পাবেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএসইসি’র ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স ডিপার্টমেন্টের নির্বাহী পরিচালক মো. মাহবুবুল আলম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘কাতারের পর সৌদি আরবে তিন দিনব্যাপী রোড শো আয়োজনের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক উন্নয়ন পরিস্থিতি সেখানকার বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তি বিনিয়োগকারী এবং স্টেকহোল্ডারদের কাছে রোড শোয়ের মাধ্যমে তুলে ধরা হবে।’

Previous post মালয়েশিয়ার কথা বলে নামিয়ে দেওয়া হত সেন্টমার্টিন
Next post শক্তিশালী বিরোধী দল পাচ্ছি না : প্রধানমন্ত্রী
Close