ভারতে চলমান মুসলিম বিদ্বেষের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য ইলহান ওমর। বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের একজন শীর্ষ কূটনীতিক কর্মকর্তার কাছে তিনি জানতে চান, মার্কিন সমর্থনের পরেও ভারত তার দেশের মুসলিম সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচার কেন করছে।

মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য ইলহান ওমর একজন মুসলিম। তিনি বাইডেন প্রশাসনের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যানের কাছে জানতে চান, কিভাবে যুক্তরাষ্ট্র ভারতের মোদি সরকারকে সমর্থন করতে পারে, যেখানে তারা (সংখ্যালঘু মসলিমদের সাথে) যা ইচ্ছা তাই করে যাচ্ছে। এ সময় তিনি মার্কিন সরকারের সামালোচনা করে বলেন, কেন সরাসরি ভারতের সমালোচনা করতে ইচ্ছুক নয় মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

তিনি বলেন, ভারতে মুসলিম হওয়াকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করছে মোদি সরকার। এখন আমাদেরকে মোদি প্রশাসন কি এমন বুঝালো যে আমরা তাদেরকে কিছু বলতে পারব না। এখন ভারতের মুসলিমদের প্রতি যে বিদ্বেষমূলক আচরণ করছে মোদি সরকার, তাতে শুধু সমালোচনা করে যুক্তরাষ্ট্র কোনো সমাধান দিতে পারবে কিনা?

এর মাধ্যমে মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য ইলহান ওমর বলতে চেয়েছেন, তিনি ভারতের নিপীড়িত মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপ চান।

ইলহান ওমরের এমন প্রত্যাশার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যান বলেন, মার্কিন সরকার বিশ্বের সকল ধর্ম, জাতি, বর্ণ ও বৈচিত্র রক্ষায় তাদের পাশে দাঁড়াবে।

যুক্তরাষ্ট্রের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন উক্তির প্রতিউত্তরে ইলহান ওমর বলেন, আশা করব (মানবাধিকার লঙ্ঘনের কারণে) শুধুমাত্র প্রতিপক্ষের বা শত্রুরাষ্ট্রের জন্যই আমরা পদক্ষেপ নেব না। বরং, মিত্রদেশও যদি ওই অপরাধ করে তবে তার বিরুদ্ধেও পদক্ষেপ নিব।

ইলহান ওমরের এমন বক্তব্যের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যান বলেন, অবশ্যই আমরা তা করব। তিনি আরো বলেন, ভারতে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে মার্কিন উদ্বেগের কথা দেশটির কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে।
সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি