অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, বৈদেশিক ঋণ প্রাপ্তিতে বাংলাদেশ নিরাপদ অবস্থানে আছে।

বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি (সিসিইএ) এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির (সিসিপিপি) দুটি বৈঠকে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, জিডিপি অনুপাতে বাংলাদেশের ঋণের হার ৩৪ শতাংশ যা বিশ্বের সর্বনিম্ন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আমাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশি। দেশে রেমিট্যান্স ও রফতানি বাড়ছে এবং মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আছে। আমরা নিরাপদ অবস্থানে আছি।

মুস্তফা কামাল বলেন, সারা বিশ্ব বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির প্রশংসা করছে।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, যেসব দেশে জিডিপির বেশি ঋণ রয়েছে তারা বর্তমানে বিপদে আছে। কিন্তু আমরা সেই স্তরে নেই। বরং, আমাদের ঋণ জিডিপির তুলনায় অনেক কম।

এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতুর টোলের হার এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। দক্ষিণ কোরিয়া ও চীনের যৌথ উদ্যোগে পদ্মা সেতু প্রকল্পের টোল আদায়ের চুক্তি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা এটা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করিনি। তবে একই ধরনের আরো প্রকল্প বাস্তবায়নে পদ্মা সেতু প্রকল্প থেকে রাজস্ব সংগ্রহ করে কিছু লাভ করার পরিকল্পনা আছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, এই প্রকল্পে সরকার ও পদ্মা সেতু ব্যবহারকারী উভয়েই উপকৃত হবেন।

তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘আমরা পদ্মা সেতু নিমার্ণ ব্যয় মেটাতে প্রয়োজনের চেয়েও বেশি রাজস্ব সংগ্রহ করতে পারব।’
সূত্র : ইউএনবি

Previous post বাংলাদেশের সঙ্গে নিরাপত্তা সহযোগিতা বাড়াতে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র
Next post ভারতে মুসলিম বিদ্বেষের বিষয়ে বাইডেনের হস্তক্ষেপ চান মার্কিন জনপ্রতিনিধি
Close