তুরস্কের আঙ্কারায় বাংলাদেশ দূতাবসের উদ্যোগে ‘বাংলাদেশের জনগণ, প্রকৃতি ও উন্নয়ন’ নিয়ে সপ্তাহ ব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ বুধবার (২৩ মার্চ ) তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মস্য়ূদ মান্নান এনডিসি ও আঙ্কারা সিটি করপোরেশনের ডেপুটি মেয়র জনাব সেরজান চিলগিন যৌথভাবে ফিতা কেঁটে প্রদর্শনীটির উদ্বোধন করেন।

বাংলাদেশ দূতাবাস আঙ্কারা ও আঙ্কারা সিটি কর্পোরেশন সহযোগিতায় ‘বাংলাদেশের জনগণ, প্রকৃতি ও উন্নয়ন’ বিষয়বস্তুর ওপর ‘খিজিলাই মেট্রো ইসতাসিওনুর মেট্রো সানাত গ্যালারিতে’ গোল্ডেন জুবলি ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং মুজিব বর্ষ উদযাপনের অংশ হিসেবে এ আলোকচিত্র প্রদর্শনীর শুরু হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন তুরস্কের বৈদেশিক সম্পর্ক বিভাগের প্রধান জনাব রমজান কাবাসাকাল, দূতাবাসের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও উভয় দেশের নাগরিকরা।

বুধবার তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মস্যূদ মান্নান এনডিসি ও আঙ্কারা সিটি করপোরেশনের ডেপুটি মেয়র জনাব সেরজান চিলগিন ‘বাংলাদেশের জনগণ, প্রকৃতি ও উন্নয়ন’ নিয়ে সপ্তাহ ব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনী ঘুরে দেখেন।

প্রদর্শনীতে বাংলাদেশের জনগণ, প্রকৃতি ও উন্নয়ন বিষয়ক আলোকচিত্রসমূহ দেখানো হবে। উল্লেখ্য যে, এ প্রদর্শনীটি আজ ২৩ মার্চ ২০২২ তারিখে শুরু হয়ে আগামী ৩০ মার্চ ২০২২ পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। প্রদর্শনীর জন্য যে স্থানটি বেছে নেয়া হয়েছে, সে স্থানটি দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার নারনারী যাতায়াত করে। এই প্রদর্শনীটি সাধারণ তুর্কি নাগরিকদের বাংলাদেশের ইতিহাস, সাংস্কৃতিক ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সম্পকে জানতে সাহায্য করবে।

এসময় রাষ্ট্রদূত মস্য়ূদ মান্নান এনডিসি তার বক্তব্যে, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড এবং বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় তার অবদানের প্রতি আলোকপাত করেন। অতঃপর বর্তমান বাংলাদেশের জনগণ, প্রকৃতি ও উন্নয়নের যে সুবিশাল কর্মযজ্ঞ প্রতিফলিত হয় সে বিষয়ের ওপর আলোচনা করেন।

তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, এ প্রদর্শনী তুরস্কের বন্ধুপ্রতিম জনগণকে বাংলাদেশের রূপকল্প, দর্শন ও মতাদর্শ এবং বাংলাদেশের সৌন্দর্য সম্পর্কে জানতে অনুপ্রাণিত করবে। আঙ্কারার ডেপুটি মেয়র সেরজান চিলগিন তার বক্তব্যে, আঙ্কারা সিটি কর্পোরেশন ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মধ্যে সি-স্টার সিটি এগ্র্রিমেন্ট শীঘ্রই সই হবে। এছাড়া বাংলাদেশের বর্তমান অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার কথা উল্লেখ করে বাংলাদেশ দূতাবাসের সঙ্গে যৌথভাবে এ আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করতে পেরে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

Previous post যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্সিয়াল অ্যাওয়ার্ড পেলেন খলিলুর রহমান
Next post গ্রিসে ‘অনিয়মিত’ বাংলাদেশিরা গ্রেপ্তার আতঙ্কে
Close