ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের কাছে রুশ বাহিনীর ছোড়া গুলিতে এক মার্কিন সাংবাদিক নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। নিহত ওই সাংবাদিকের নাম ব্র্যান্ড রেনড।

এ ছাড়া এসময় আরো দুজন আহত হয়েছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ান রোববার এ তথ্য জানিয়েছে।

কিয়েভের পুলিশ প্রধান আন্দ্রে নেবিতোভ জানান, রুশ সৈন্যরা তাঁদেরকে লক্ষ্যবস্তু করেছে। আহত আরও দুই সাংবাদিককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিবিসি বলছে, ইউক্রেন যুদ্ধের মাঠে কাজ করা প্রথম বিদেশি সাংবাদিক হিসেবে ব্র্যান্ড রেনডের মৃত্যুর খবর এলো।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ব্র্যান্ড রেনডের মৃত্যুতে তারা গভীরভাবে শোকাহত। কিন্তু বর্তমানে তিনি ইউক্রেনে সংবাদমাধ্যমটির হয়ে কাজ করছেন না। তিনি সর্বশেষ ২০১৫ সালে সংবাদমাধ্যমটির হয়ে কাজ করেছেন।

নিউইয়র্ক টাইমস আরো বলেছে, ব্র্যান্ড রেনড ইউক্রেনে তাদের যে প্রেস আইডিটি ব্যবহার করেছেন সেটি কয়েক বছর আগে ইস্যু করা হয়েছিল। ইউক্রেনে বর্তমানে তিনি কোন প্রতিষ্ঠানের হয়ে কাজ করছিলেন তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

এদিকে, ইউক্রেনে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া রুশ অভিযান তীব্র আকার ধারণ করেছে। রাজধানী কিয়েভ ঘিরে ফেলেছে রুশ সেনারা।

ইউক্রেনের পশ্চিমাঞ্চলে হামলাসহ দেশটির দ্রুত অবনতিশীল নিরাপত্তা পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে ইউক্রেনে ভারতীয় দূতাবাস অস্থায়ীভাবে পোল্যান্ডে স্থানান্তর করার ঘোষণা দিয়েছে নয়াদিল্লি।

রোববার পোল্যান্ডের সীমান্তবর্তী ইউক্রেনের পশ্চিমাঞ্চলীয় লিভভ শহরে সামরিকঘাঁটিতে রুশ বাহিনীর হামলায় ৩৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৩৪ জন।