যুদ্ধ শুরুর পর থেকে গতকাল সোমবার বিকেল পর্যন্ত প্রায় ৫০০ বাংলাদেশি ইউক্রেন ছেড়েছেন। তাঁদের মধ্যে মাত্র ৬০ জন দেশে ফিরতে চান। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহিরয়ার আলম গতকাল সোমবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

সরকারের ধারণা, গত বৃহস্পতিবার ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের সময় দেশটিতে প্রায় এক হাজার ২০০ বাংলাদেশি ছিলেন।

এখনো ইউক্রেনে আটকে থাকা প্রায় সাত শ বাংলাদেশির সঙ্গে দূতাবাসের যোগাযোগ আছে।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইউক্রেন থেকে ৪৭০ বাংলাদেশি মলদোভা, রোমানিয়া ও পোল্যান্ডে আশ্রয় নিয়েছেন। তাঁদের বেশির ভাগই নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় আছেন। এর মধ্যে ৪৫ জন পোল্যান্ডে সরকারি ব্যবস্থাপনায় আছেন। তাঁরা দেশে ফিরতে চান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কিভাবে তাঁদের ফেরত আনা হবে, সে বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। পোল্যান্ডে ৪৫ জনকে রাখা কোনো বিষয় নয়। পোল্যান্ড সরকার তাঁদের ১৫ দিন পর্যন্ত থাকতে দেবে।

শাহিরয়ার আলম বলেন, আগামী দুই-চার দিনের মধ্যে আনা হবে না। এত অল্প মানুষকে আনার জন্য বিমান পাঠানোর দরকার নেই। ইউক্রেনে বেশ কিছু অবৈধ বাংলাদেশি আছেন। তাঁদের প্রত্যাবাসনে আইওএম কাজ করছে।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুকেন্দ্রের বিষয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঢাকায় রাশিয়া দূতাবাসের সঙ্গে সরকারের যোগাযোগ হয়েছে। সহসাই কোনো সমস্যা হবে না। কাজের গতিও কমবে না।

Previous post ব্যবসায়ীকে হত্যার দায়ে মালদ্বীপে বাংলাদেশির মৃত্যুদণ্ড
Next post তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের হুমকি রাশিয়ার, ব্যবহৃত হবে পারমাণবিক অস্ত্র
Close