পোল্যান্ড-ইউক্রেন সীমান্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা ছাড়া উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। পোলান্ডের রাজধানী ওয়ারসতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি এ তথ্য জানিয়েছে।

ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার পরিপ্রেক্ষিতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এক পোস্টে পোল্যান্ডে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস জানিয়েছে, বৈধ পাসপোর্টধারী প্রবাসী বাংলাদেশিরা ‘সীমান্ত রক্ষী বাহিনীকে পাসপোর্ট প্রদর্শন করে পোল্যান্ডে ঢুকতে পারবেন।’

আর, যাঁদের পাসপোর্ট নেই, তাঁরা ট্রাভেল পাস নিয়ে পোল্যান্ডে ঢুকতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে প্রত্যেক বাংলাদেশিকে দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ রঙিন ছবি সঙ্গে রাখার অনুরোধ করা হয়েছে।

দূতাবাস আরও জানিয়েছে, ওয়ারসতে বাংলাদেশ দূতাবাসের একটি দল আগামীকাল সকালে পোল্যান্ড-ইউক্রেন সীমান্তের পথে রওনা হবে। তারা ইউক্রেন থেকে পোল্যান্ডে ঢুকতে ইচ্ছুক বাংলাদেশিদের সহায়তা প্রদান করবে।

এর পাশাপাশি বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ‘ইউক্রেনের ভেতরে বিচ্ছিন্ন বোমা বিস্ফোরণ, পেট্রোলের অপ্রতুলতা এবং পথে অতিরিক্ত যানজটের কারণে এ মুহূর্তে পোল্যান্ড সীমান্তের দূরবর্তী এলাকায় অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের সীমান্তের দিকে রওনা হতে হলে পরিস্থিতি ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করে রওনা দিতে অনুরোধ করা যাচ্ছে।’

ইউক্রেনে বাংলাদেশের কোনো দূতাবাস নেই। পোল্যান্ডের ওয়ারসতে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে ইউক্রেনে বাংলাদেশিদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি বাংলা।

পোল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সুলতানা লায়লার বরাতে বিবিসি বাংলা জানিয়েছে, ইউক্রেনে হাজার দেড়েক বাংলাদেশি রয়েছেন, যাঁদের মধ্যে প্রায় ৫০০ জনের সঙ্গে দূতাবাস যোগাযোগ রাখছে।

এ ছাড়া পোল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত বলেছেন, বাংলাদেশিদের ট্রানজিট ভিসায় পোল্যান্ডে এনে দেশে পাঠানোর চেষ্টা শুরু করেছেন তাঁরা।

জানা গেছে, পোল্যান্ড সরকার ইউক্রেনে বসবাসরত বিদেশি নাগরিকদের ১৫ দিনের জন্য ট্রানজিট ভিসা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যাতে তাঁরা দেশে চলে যেতে পারেন।