লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগরীয় দ্বীপ ল্যাম্পাদুসায় যাওয়ার পথে অতিঠাণ্ডায় সাত বাংলাদেশি অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে। ল্যাম্পাদুসার মেয়র সালভাদর মার্টিওলো তাদের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। খবর: রয়টার্স

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সিসিলির দক্ষিণাঞ্চলীয় উপকূল অ্যাগ্রিগেন্টোর কৌঁসুলি লুইগি প্যাট্রোনাগ্গিও এক বিবৃতে জানান, নৌযানটিতে ২৮০ জনের বেশি অভিবাসী ছিলেন। তাদের অধিকাংশই বাংলাদেশ ও মিসর থেকে যাওয়া।

ল্যাম্পাদুসার নিকটবর্তী জনবসতিহীন দ্বীপ ল্যাম্পিওয়নের উপকূল থেকে ১৮ মাইল দূরে একটি নৌকায় তাদের দেখতে পান উপকূলরক্ষীরা। পরে তাদের উদ্ধারে অভিযান পরিচালনা করা হয়। তখন সাত বাংলাদেশির মরদেহ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় অবৈধ অভিবাসী ও মানুষহত্যায় সহযোগিতার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনা তদন্তে নেমেছেন লুইগি প্যাট্রোনাগ্গিওর কার্যালয়।

হাজার হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশী ও আশ্রয়প্রার্থীর মূল গন্তব্য এখন ইউরোপীয় দেশ ইতালি। গত কয়েকমাসে দেশটির উপকূলে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বহন করা নৌকার সংখ্যাও বেড়ে গেছে। চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত এক হাজার ৭৫১ অভিবাসনপ্রত্যাশী ইতালির বিভিন্ন বন্দরে অবতরণ করেছেন।

Previous post আন্তর্জাতিক সংস্থার চিঠি শান্তি মিশনে প্রভাব ফেলবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
Next post দুর্নীতিতে বিশ্বে ১৩তম বাংলাদেশ
Close