সিঙ্গাপুর পেন্জুরু রিক্রিয়েশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো জমকালো বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান “নিউ ইয়ার নিউ হোপ ২০২২”। মাইগ্র্যান্ট ওয়ার্কার্স সিঙ্গাপুর এবং হিয়ার উইথ ইউ_মাইগ্র্যান্ট ওয়ার্কার্স হেল্প লাইনের পরিচালনায় বিকেল ৫টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। এশিয়ার বিভিন্ন দেশের প্রবাসী শ্রমিকরা এই অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। মুষলধারায় বৃষ্টি থাকা সত্ত্বেও শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত হল ভর্তি দর্শক ছিলো। তারা বিভিন্ন দেশের সংস্কৃতি পর্ব উপভোগ করেন।

মঞ্চে নাচ, গান, কবিতাসহ দর্শকদের অংশগ্রহণে জমজমাট আয়োজনে বিভিন্ন পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। হলের প্রবেশ পথের দুই পাশে সহযোগী সংগঠনরা তাদের বুথের মাধ্যমে প্রবাসী শ্রমিকদেরকে সেবা প্রদান করে। “মাইগ্র্যান্ট ওয়ার্কার্স সিঙ্গাপুর” সংগঠনের কর্ণধার রিপন চৌধুরীর স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। প্রাণবন্ত এই অনুষ্ঠানে প্রবাসী শ্রমিকদের উপস্থিতি ছিল স্বতঃস্ফূর্ত।

আয়োজকরা অনুষ্ঠানের শুরুতে “ডরমিটরির কণ্ঠস্বর” প্রতিযোগিতার ১৫ জন বিজয়ীকে এন্ডুর হাত থেকে পুরষ্কার দিয়ে সম্মান জানান। এন্ড্রু তার বক্তব্যে ডরমিটরির কণ্ঠস্বর আয়োজন সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। বিজয়ী কামরুজ্জামান তার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে আবেগে আপ্লুত হন। ডরমিটরিতে বাস করা শ্রমিকদের প্রতি আরও সুদৃষ্টি দেওয়ার জন্য এই ধরনের আয়োজন বড় ধরনের ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করেন।
সিঙ্গাপুরের স্থানীয় সংগঠন উইম্বি, এ গুড স্পেস এর ফাউন্ডার এবং সিঙ্গাপুরের সাবেক সংসদ সদস্য এনথিয়া অং মঞ্চে এসে সকলকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানান। এই সময় একজন বাংলাদেশি শ্রমিক তাকে একটি তার আঁকা ছবি উপহার দেন। এই প্রসঙ্গে উপস্থাপক বলেন, সুযোগ পেলে প্রবাসী শ্রমিকরা এই শহরে কাজের পাশাপাশি তাদের অন্যান্য প্রতিভা বিকাশেও সক্ষম হতো। মঞ্চে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানাতে আরও উপস্থিত হয়েছিলেন প্রবাসী শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করা সামা সামা সংগঠনের ফাউন্ডার কারি তামুরা। তিনি সকল শ্রমিকদের নিয়ে এক সঙ্গে কাজ করার আশা ব্যক্ত করেন।

আমন্ত্রিত প্রবাসী শিল্পীরা তাদের অসাধারণ নৈপুণ্যে হলভর্তি দর্শকদের আনন্দে মাতিয়ে রাখে। অনুষ্ঠান চলাকালীন সময়েও হলের বাইরে দর্শকদের উপচেপড়া ভিড় ছিল। স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা এবং অনুষ্ঠানের মিডিয়া পার্টনার সিঙ্গাপুর প্রবাসী পেইজের এডমিন আল আমিন তার অনুভূতি জানাতে এসে আনন্দ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। আয়োজকসহ উপস্থিত সকল স্বেচ্ছাসেবক সদস্যদের ধন্যবাদ জানান। প্রবাসী শ্রমিকদের যে কোন সমস্যায় হিয়ার উইথ ইউ _মাইগ্র্যান্ট হেল্প লাইনে সহযোগিতা নেওয়ার জন্য আহবান করেন।

উল্লেখ্য, কোভিড-১৯ চলাকালীন সময়ে হিয়ার উইথ ইউ এর ফাউন্ডার জীবন এনজি প্রবাসী শ্রমিকদেরকে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিভিন্ন ডরমিটরিতে পৌঁছে দিয়েছিলেন। পাশাপাশি হেল্পলাইনের মাধ্যমে প্রায় পাঁচ হাজার বিপদগ্রস্ত শ্রমিকদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছেন।

অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করতে এসে আয়োজক কমিটির সংগঠন হিয়ার উইথ ইউ_মাইগ্র্যান্ট ওয়ার্কার্স হেল্পলাইন এর ফাউন্ডার জীবন এনজি উপস্থিত সকলকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানান এবং ভবিষ্যতে এই ধরনের আয়োজন করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানের মিডিয়া পার্টনার ছিলেন সিঙ্গাপুর প্রবাসী (SGP) এবং সিঙ্গাপুরে আমরা প্রবাসী বাংলাদেশি।