ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট সিনেট ডিস্ট্রিক্ট-১০ থেকে সামনের বছর নির্বাচনে অবতীর্ণ হয়েছেন বাংলাদেশী-আমেরিকান জামাল খান। বিশ্বখ্যাত হার্ভার্ড থেকে আইন শাস্ত্রে উচ্চতর ডিগ্রিধারী জামাল খান তথ্য-প্রযুক্তির বিশ্ব রাজধানী খ্যাত সিলিকন ভ্যালিসহ সাউদার্ন উপকূলিয় অঞ্চলের সান্তা ক্লারা ও আলমেদা কাউন্টির এ্যাশল্যান্ড, ক্যাস্ত্রো ভ্যালি, চেরিল্যান্ড, ফেয়ারভিউ, ফ্রিমন্ট, হ্যায়ার্ড, নিউয়ার্ক, স্যান লিন্দ্রো, স্যান লরেঞ্জো এবং ইউনিয়ন-এই ১১ সিটি নিয়ে গঠিত এলাকা থেকে ডেমক্র্যাটিক পার্টির মনোনয়ন যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছে। প্রাইমারি অনুষ্ঠিত হবে সামনের ৭ জুনে। ভোটারের সংখ্যা ৫ লাখের বেশী। লড়ছেন আরো ৪ জন।

মনোনয়ন যুদ্ধে জয়ী হতে পারলে নভেম্বরের ৮ তারিখে চূড়ান্ত নির্বাচনে থাকবেন জামাল খান।

উল্লেখ্য, রাজধানী ঢাকার সন্তান ড. মাহবুব খানের পুত্র জামাল খান ৪ মাস বয়সে মা-বাবার সাথে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন। বে এলাকায় বেড়ে উঠা জামাল খান কিন্ডারগার্টেন থেকে দ্বাদশ গ্রেড পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন একই এলাকাতেই। হাই স্কুল ভ্যালেডেক্টেরিয়ান হিসেবে গ্র্যাজুয়েশনের পর ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া-বার্কলেতে অধ্যয়ন করেন। একইসাথে অর্থনীতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান এবং অলংকার শাস্ত্রে মেজর করেন। মাইনোর করেছেন বিশ্ব-দারিদ্রতা নিয়ে। সবগুলোতেই অত্যন্ত মেধার সাথে গ্র্যাজুয়েশন করেছেন।
হার্ভার্ডে অধ্যয়নকালে জামাল খান মুসলিম ল’ স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন। এছাড়া সাউথ এশিয়ান ল’ স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনেরও কমিউনিকেশন্স চেয়ার হয়েছিলেন। হার্ভার্ড হিউম্যান রাইটস জার্নালেরও ম্যানেজিং টেকনিক্যাল এডিটরের দায়িত্ব অত্যন্ত সুনামের সাথে পালন করেছেন। আন্ডার গ্র্যাজুয়েট কালে জামাল খান কংগ্রেসের স্পিকার ন্যান্সি প্যালসির সান ফ্রান্সিসকো অফিসে ইন্টার্ন করেছেন। ৭ ডিসেম্বর কথা হয় এ সংবাদদাতার। বহুজাতিক সমাজে বসবাস করলেও পারিবারিক আবহে জড়িয়ে রয়েছেন এবং বাংলাতেও কথা বললেন নিঃসংকোচে। এর আগে তিনি একই সিটির কাউন্সিলর হতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সামান্য ভোটের কারণে ডেমক্র্যাটিক পার্টির মনোনয়ন লাভে সক্ষম হননি। এবারের সম্ভাবনা উজ্জল এবং এজন্যে কমিউনিটির সকলের আন্তরিক সহায়তা চেয়েছেন মৃদ্যুভাষী জামাল খান। তার প্রার্থীতা সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে এই (www.votekhan.com)ওয়েবসাইট ভ্রমণ করলে।

Previous post তাহলে কোথায় গেলেন ডা. মুরাদ?
Next post পিনাকী ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে প্যারিসে অভিযোগ
Close