পারস্পরিক সম্মান, আস্থা ও গভীর বন্ধুত্বের ওপর ভিত্তি করে তুরস্ক এবং বাংলাদেশের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক দাঁড়িয়ে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তুরস্কের সামরিক বাহিনীর স্থল বাহিনীর কমান্ডার জেনারেল মুসা আরসেভার। গত রোববার (২১ নভেম্বর) তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এই মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে গত রোববার এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সোমবার (২২ নভেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে তুর্কি সংবাদমাধ্যম ডেইলি সাবাহ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে জেনারেল মুসা আরসেভার বলেন, ‘তুরস্কের এবং বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক সম্পর্ক রয়েছে। আর তাই দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক পারস্পরিক সম্মান, আস্থা ও গভীর বন্ধুত্বের ওপর প্রতিষ্ঠিত।’

তুর্কি সামরিক বাহিনীর এই কমান্ডার আরও বলেন, ‘আমাদের বাংলাদেশি ভাইয়েরা-সহ দক্ষিণ এশিয়ার সকল মুসলিম আমাদের জাতীয় সংগ্রামকে অর্থনৈতিক ও নৈতিকভাবে সমর্থন করেছে। আমাদের মহান নেতা মোস্তফা কামাল আতাতুর্কের প্রতি বাংলাদেশের জনগণের গভীর শ্রদ্ধার বিষয়েও আমরা অবগত। তুরস্ক ও বাংলাদেশ সবসময় একে-অপরকে সমর্থন করেছে এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ইস্যুতে আমাদের মধ্যে ঐক্য রয়েছে।’

এসময় রাষ্ট্রদূত মসুদ মান্নান বলেন, চলতি বছর বাংলাদেশ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী পালন করছে। তিনি আরও বলেন, দক্ষিণ এশিয়ায় ভারতের পরই তুরস্কের দ্বিতীয় বৃহত্তম বাণিজ্য অংশীদার বাংলাদেশ।

অনুষ্ঠানে তুরস্কের উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী সুয়াই আলপে, তুরস্কের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যসহ কূটনৈতিক কোরের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।