বাাংলাদেশ জমঈয়তে আহলে হাদীসের উপদেষ্ঠা ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেছেন, সম্প্রতি দেশের একজন প্রতিমন্ত্রীকে বলতে দেখলাম ‘আমি রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিয়ে দিব’। উনি একজন মুসলমান, আপনি রাষ্ট্রীয় ধর্ম ইসলাম বাদ দিয়ে দিবেন এটা কি আপনার দলীয় ফোরামে আলোচনা করেছেন? আপনি একজন মন্ত্রী এটা কি মন্ত্রী পরিষদে আলোচনা করেছেন? আপনি একজন সংসদ সদস্য হিসেবে স্থায়ী কমিটিতে আলোচনা করেছেন? কোনো কোরামেই করেন নাই। বলে দিলেন আমি রাষ্ট্র ব্যবস্থা ইসলাম মানি না। এটা কোনো মুসলমানের কাজ হল। কোনো মুসলমান এটা করতে পারে?

শনিবার (১৬ অক্টোবর) ঢাকার আশুলিয়ায় বাইপাইলে ইন্টারন্যাশনাল ইসলামী ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজির নিজস্ব ক্যাম্পাসে বাংলাদেশ জমঈয়তে আহলে হাদীসের দশম কেন্দ্রীয় কাউন্সিল অধিবেশনে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্য প্রতিমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে সাঈদ খোকন বলেন, রাষ্ট্র তো দূরের কথা, রাষ্ট্র তো অনেক বড় ব্যাপার। বাংলাদেশ ১৭ কোটি মুসলামানের দেশ। তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্র নয়, বুকের পাটা থাকলে নিজের নামটি ইসলাম থেকে খারিজের ঘোষণা দিন। কলিজাটা এতই থাকলে বলেন আমি ইসলাম মানি না। বলে খারিজ করে নিন। আপনাকে কেহ আটকায়া রাখছে?

তিনি বলেন, নিজেকে মুসলিম দাবি করে ইসলামের বিরুদ্ধে কথা বলবেন এটা দুঃখজনক। ইসলাম থেকে নিজেকে ত্যাগ করে দেখেন দুদিন পরে মন্ত্রীত্ব থাকে কি না? এমপিত্ব থাকে কিনা? মনগড়া কথা বলেন? ইসলাম বিরোধী কথা বলেন দলের অনুমতি নেন নাই। প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি নেন নাই। এ দায়িত্ব কি দলের? এর দায় ভার কি সরকার নিবে? ইসলামের বিরুদ্ধে কথা বললে এ দেশের মুসলিমগণ তা সহ্য করবে না। আর তাই এদের কে আমি বলি নামে মুসলমান। কিন্তু ইসলাম বিরোধী মানুষ।

সাঈদ খোকন আরও বলেন, শিরক বিদআত মুক্ত আদর্শ সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আমাদের দাওয়াহ ও তাবলীগী কাজকে আরও বেশি গতিশীল করে আহলে হাদীসদের মূল সংগঠন জমঈয়তকে আরও বেশি তৎপর হতে হবে।

কাউন্সিল অধিবেশনে একেএম রহমতুল্লাহ এমপি বলেন, আজ নিয়মতান্ত্রিকভাবে এ সংগঠনের কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আজকের কাউন্সিলে আলেমগণের মধ্য থেকেই নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে। যাদের ওপর নেতৃত্ব আসবে, আমরা তাদেরকে পূর্ণ সহযোগিতা প্রদান করে এই নেতৃত্বের অধীনে একটি ইসলামী সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সবাইকে পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করতে আহ্বান জানান।

সংগঠনের কেন্দ্রীয় আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা (সাবেক আইজিপি) মুহাম্মদ রুহুল আমীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জমঈয়তে দশম কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান একেএম রহমতুল্লাহ, নির্বাচন কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. দেওয়ান আব্দুর রহীম ও সাবেক সচিব এম. এ সবুরসহ সারা দেশ থেকে আসার জমঈয়তে কাউন্সিলরবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।