বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই সরকারকে কোনোভাবেই আর সময় দেয়া যাবে না। আজ আমাদের কোনো কিছু অবশিষ্ট নেই। এই সরকার বিচার বিভাগ, পার্লামেন্ট, প্রাশাসন, শিক্ষা ব্যবস্থা, স্বাস্থ্য খাত ও অর্থ ব্যবস্থাকে ধ্বংস করেছে। ৯০-এর মতো আরও একটি গণঅভ্যুত্থান ঘটাতে হবে।

রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে শহীদ জেহাদ দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলনের পরিচালনায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাবেক ছাত্র নেতা শামসুজ্জামান দুদু, বিএনপির বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ডাকসুর সাবেক জিএস খায়রুল কবির খোকন, সাবেক ছাত্রনেতা মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, সাবেক এমপি বিএনপি নেতা জহির উদ্দিন স্বপন, সাবেক এমপি বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, সাবেক ছাত্রনেতা ডেমোক্রেটিক লীগের মহাসচিব সাইফুদ্দিন মনি, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভূইয়া জুয়েল, মহিলা দলের সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক হেলেন জেরিন খান, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ১৯৭১ সালে আমরা স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছিলাম। লাখো মানুষের জীবনের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতাকে ছিনিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছি। পরে ১৯৯০ সালে একটি গণঅভ্যুত্থান বাংলাদেশের রাষ্ট্র ব্যবস্থায় পরিবর্তন এনে দিয়েছিল। দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয়েছিল। সেদিন বেগম খালেদা জিয়া নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। আজকে আবার সেই সময় এসেছে। আরও দৃঢ়তার সঙ্গে আরেকটি গণঅভ্যুত্থান ঘটাতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই সরকার অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিল করেছে।