যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে লস এঞ্জেলেস্থ বাংলাদেশ কন্সুলেটে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধি প্রতিপালন করে কন্সুলেটের বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশী (এমপি) জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিন এ খান এবং বাণিজ্যমন্ত্রীর সফর সঙ্গী হিসেবে আগত বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবসহ সরকারের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

ক্যালিফোর্ণিয়াতে বসবাসরত বীর মুক্তিযোদ্ধা, কমিউটির রজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যবৃন্দ, ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্ধসহ কমিউনিটির উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সদস্য জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে অংশহগ্রহণ করেন।

প্রধান অতিথি ও কন্সাল জেনারেল কর্তৃক জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করণের মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচীর সূচনা করা হয়। এরপর চ্যান্সেরীর বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে স্থাপিত জাতির পিতার ম্যুরালে পুস্পস্তবক অর্পণ করে সম্মান জানানো হয়।বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ করার পর জাতির পিতা, বঙ্গমাতা, তাদের পরিবারের নিহত সকল সদস্য ও অন্যান্য শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এরপর জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রেরিত রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়।

অনুষ্ঠানে জাতির পিতার জীবন ও কর্মের উপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র ‘চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু’ প্রদর্শিত হয়।