বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর মো. খোরশেদ আলমের মৃত্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটেস অঙ্গরাজ্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঝে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। তিনি ১৯৭১ সালে ম্যাসাচুসেটেস অঙ্গরাজ্যের বোস্টনে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব নিউ ইংল্যান্ড (বেইন) নামে প্রথম বাংলাদেশি সংগঠন প্রতিষ্ঠা করে সেখান থেকে স্বাধীনতাযুদ্ধের পক্ষে কাজ করেছেন।

তার মৃত্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের পূর্বাঞ্চল নিউ ইংল্যান্ডের ম্যাসাচুসেটস, কানেকটিকাট, রোড আইল্যান্ড, ভারমন্ট ও মেইন অঙ্গরাজ্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঝে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। ম্যাসাচুসেটেস অঙ্গরাজ্যের বোস্টনে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশ অব নিউ ইংল্যান্ড (বেইন) এর বর্তমান ও সাবেক কর্মকর্তারা শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনাসহ খোরশেদ আলমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন।

গত বুধবার (২৮ জুলাই) সকাল ১০টায় রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে বার্ধক্যজনিত কারণে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর মো. খোরশেদ আলম মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। তিনি স্ত্রী, চার পুত্র ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোকপ্রশাসন ও টাফটস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন। তিনি একজন ভাষাসৈনিক। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

১৯৫৭ সালে পাকিস্তান সিভিল সার্ভিসে যোগদান করে খোরশেদ আলম পেশাগত জীবন শুরু করেন। তিনি চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ ও পাবনার জেলা প্রশাসক ছিলেন। এ ছাড়া তথ্য, স্থানীয় সরকার, যোগাযোগ, শিল্প, বাণিজ্য ও অর্থসচিব এবং তুরস্কের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করেছেন। বাংলাদেশ ব্যাংকে গভর্নর হিসেবে যোগদানের আগে তিনি মুখ্য অর্থসচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন।

১৯৩৫ সালের ১৫ জানুয়ারি নরসিংদী জেলার রামনগরে জন্মগ্রহণ করেন খোরশেদ আলম। পেশাগত জীবনে তিনি মেধার স্বাক্ষর রেখেছেন। তিনিই প্রথম বাংলাদেশ ব্যাংকে মুদ্রানীতি কমিটি গঠন ও পরিচালনা করেন। আর্থিক খাত কর্মসূচির আওতায় তিনি আইএমএফ, বিশ্বব্যাংক ও এডিবিসহ বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় ব্যাংকিং কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেছেন।