ফোবানা কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে সবার অবগতির জন্য জানানো হয়েছে যে, বিগত ২৯ জুন ২০২১ তারিখে ফোবানা কেন্দ্রীয় কমিটি এবং ফোবানা সম্মেলন-২০২১-এর স্বাগতিক সংগঠনের মাঝে বিরাজমান নাজুক পরিস্থিতির সাংবিধানিভাবে যথাযথ সমাধানকল্পে এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভায় চেয়ারপারসন উপস্থিত না হয়ে দায়িত্ব পালন না করায় এবং নির্বাহী কমিটির সাথে সহযোগিতা না করায় বিস্তারিত আলোচনা সাপেক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যের ভোটগ্রহণে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় যে, ফোবানার চেয়ারপারসন জাকারিয়া চৌধুরীর দায়িত্বহীনতা এবং সাংগঠনিক যথাযথভাবে কার্য পরিচালনায় ব্যার্থতা ও অপারগতার ভিত্তিতে তাকে অনতিবিলম্বে অনাস্থা প্রস্তাবসহ তার দায়িত্ব ও কর্মপালন থেকে অব্যাহতি দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সংবিধান অনুযায়ী নির্বাহী কমিটির চেয়ারপারসন জাকারিয়া চৌধুরীর ২০২০-২০২১ সালের কর্মকাল অব্যাহত থাকবে, শুধু তার কার্যপরিচালনা স্থগিত রাখা হবে এবং নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারপারসন, ড: আহসান চৌধুরী কমিটির বাকির সদস্যের সহযোগিতায় কার্যকালের মেয়াদ পর্যন্ত ফোবানার নির্বাহী কমিটির পরিচালনার দায়িত্ব পালন করে যাবেন।

চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বর্ণিত অভিযোগ সমূহ :
(১) অসাংবিধানিক ও অগণতান্ত্রিকভাবে কেন্দ্রীয় কমিটিকে পাশ কাটিয়ে ফোবানার কার্যক্রম সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ,
(২) অসাংবিধানিকভাবে হোস্ট কমিটিকে ফোবানা সম্মেলনের তারিখ পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত প্রদান,
(৩) চেয়ারম্যান হিসেবে ক্ষমতা বলে নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারপারসন ও এক্সেকিউটিভ সেক্রেটারিকে অসাংবিধানিকভাবে দায়িত্ব থেকে অপসারণ করার অপচেষ্টা,
(৪) গণমাধ্যমে ফোবানার নির্বাহী কমিটির সদস্যদের বিরুদ্ধে বিভ্রান্তিমূলক অপপ্রচার চালিয়ে তাদের মান হানির চেষ্টা এবং জনগণের কাছে ফোবানার ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা,
(৫) ফোবানা কেন্দ্রীয় কমিটির পরিচালনায় সাংবিধানিক ধারা অগ্রাহ্য করা,
(৬) ফোবানার জরুরী সভা আহবান ও ফোবানার কার্যক্রম পরিচালনায় অসহযোগিতা করা
(৭) ফোবানার ৩৫ বছরের সন্মানকে মিথ্যা এবং ভুল তথ্য দিয়ে হোস্ট কমিটিকে অর্থনৈতিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করা

উল্লেখ্য, আয়োজিত জরুরী যে কোন প্রশ্ন বা তথ্যের জন্য ফোবানা এক্সেকিউটিভ সেক্রেটারীর (মাসুদ চৌধুরী) সাথে যোগাযোগ করার জন্য সবাইকে বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে। ফোন- 818-730-1020)।