ভাইরাস থেকে মুক্তিলাভের স্লোগানে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন রবিবার (ফোর্থ জুলাই)যুক্তরাষ্ট্রের ২৪৫তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করবেন। যদিও অঙ্গিকার অনুযায়ী স্বাধীনতা দিবসের মধ্যে টিকা নেয়ার উপযুক্ত আমেরিকানদের ৭০%কেই টিকা প্রদানের লক্ষ্য অর্জনে সক্ষম হননি প্রেসিডেন্ট বাইডেন।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, পূর্ণ ডোজের টিকা প্রদান করা সম্ভব হয়েছে ৫০% এরও কিছু কম। এতদসত্বেও বাইডেন উৎফুল্ল এবং স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে হোয়াইট হাউজের সাউথ লনের সমাবেশে ঘোষণা দেয়ার সংকল্প নিয়েছেন যে, শিগগিরই আমরা করোনা মহামারি মুক্ত হচ্ছি।

বাইডেনের যুক্তি হচ্ছে, ২০ জানুয়ারিতে ক্ষমতা গ্রহণের দিন করোনায় সংক্রমিত হবার সংখ্যা ছিল দু’লাখ। এখন সেটি কমে ১২ হাজারে এসেছে। গত বছরের মার্চে করোনার প্রকোপ দেখা দেয়ার পর এই প্রথম করোনায় আক্রান্ত হয়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ৩০০ জনের নিচে এসেছে এবং গত দু’সপ্তাহে মৃত্যুর হার ২০% কমেছে বলে সিডিসির বিশ্লেষণে জানা গেছে। তবে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের তণ্ডবে জনজীবনে নতুন ভীতির সঞ্চার ঘটিয়েছে। ফলে যারা টিকা নেয়নি তাদের কারণে টিকা গ্রহণকারিরাও এক ধরনের শংকায় দিনাতিপাত করছেন।
স্বাধীনতা দিবসে হোয়াইট হাউজের সাউথ লনের অনুষ্ঠানে এক হাজার সৈন্যকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বাইডেন ও ফার্স্টলেডি জিল বাইডেন। তাদেরকে সম্মুখে রেখে বাইডেন করোনা থেকে আমেরিকানদের রক্ষার কৃতিত্ব দাবি করতে চান। এবং চলতি গ্রীষ্মকালকে ভীতি-মুক্ত পরিবেশে উদযাপনের আহ্বান জানাবেন।

এদিকে, স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বড় ও জমকালো আয়োজন করে থাকে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ‘ম্যাসী’। গতবছর করোনার কারণে সেটি বন্ধ ছিল। এবার নিউইয়র্ক সিটি প্রশাসন অনুমতি দিলেও সীমিত পরিসরে করার কথা জানিয়েছে। যারা সশরীরে যেতে চান তাদেরকে মাস্ক পড়তে অনুরোধ জানানো হয়েছে। তবে ম্যানহাটানের ইস্ট রিভারে বর্ণাঢ্য সেই আতসবাজির মনোমুগ্ধকর দৃশ্য টিভিতে সরাসরি প্রচারের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।