বিভিন্ন খাতে উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশকে ৩৩৯ দশমিক ৫৪ মিলিয়ন ইউরো বা ৩ হাজার ৪৬৩ কোটি ৩ লাখ টাকা দেবে জার্মানি।

সোমবার ঢাকায় অবস্থিত জার্মান দূতাবাস জানায়, রোববার বাংলাদেশ ও জার্মানির মধ্যে কারিগরি ও আর্থিক চু্ক্তি অনুষ্ঠিত হয়।

চুক্তির আওতায় ‘রিনেবল এনার্জি অ্যান্ড এনার্জি ইফিসিয়েন্সি প্রকল্পে ২৩৭ দশমিক ৫ মিলিয়ন, সাসটেনেবল আরবান ডেভলপমেন্ট প্রকল্পে ৩০ মিলিয়ন, গুড গভর্নেন্স প্রকল্পে ৫ দশমিক ৫ মিলিয়ন, ডিসপ্লেসমেন্ট অ্যান্ড মাইগ্রেশন প্রকল্পে ১৯ মিলিয়ন, ট্রেইনিং অ্যান্ড সাসটেনেবল গ্রোথ ফর ডিসেন্ট জব প্রকল্পে ৪২ দশমিক ৫ মিলিয়ন এবং প্রটেকশন অব বায়োডায়ভার্সিটি প্রকল্পে ৫ দশমিক শূন্য ৪ মিলিয়ন ইউরো দেবে।

৩৩৯ দশমিক ৫৪ মিলিয়ন ইউরোর মধ্যে ৪৭ দশমিক ০৪ মিলিয়ন ইউরো অনুদান হিসেবে দেবে জার্মান। বাকি ২৯২ দশমিক ৫ মিলিয়ন ইউরো ঋণ হিসেবে দেবে।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন ও ঢাকায় নিযুক্ত জার্মান রাষ্ট্রদূত পিটার ফারেনহল্টস চুক্তিতে সই করেন।

অনুষ্ঠানে ঢাকায় জার্মান দূতাবাস, জার্মান উন্নয়ন ব্যাংক কেএফডব্লিউ, জার্মান কারিগরি সহযোগিতা সংস্থা জিআইজেড ও বিজিআর এবং বাংলাদেশ সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ঋণ-অনুদান চুক্তিসই অনুষ্ঠানে জার্মান রাষ্ট্রদূত বলেন, এই চুক্তি বাংলাদেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। সেইসাথে বাংলাদেশ-জার্মানির মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে। এসডিজি অর্জনে এই চুক্তি সুদূরপ্রসারী অবদান রাখবে। আমরা বাংলাদেশের উন্নয়নমূলক কাজে সবসময় সঙ্গী হব।

জার্মান রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘বাংলাদেশের উন্নয়নমূলক কাজের সাথে থাকতে পেরে আমরা পেরে আনন্দিত।’