প্রবাসীদের সুখ হচ্ছে পরিবারকে স্বচ্ছল রাখা। প্রচণ্ড রৌদ্রের তাপে কঠিন পরিশ্রম করে যে টাকা উপার্জন করা হয়, সেই টাকা থেকে নিজের খরচটা রেখে বাকি টাকাগুলো মাস শেষে দেশে পাঠালেই যেনো সব কষ্টের কথা ভুলে যান একজন প্রবাসী। তেমনি নিজ পরিশ্রমের টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা দেশে পাঠিয়ে জীবন অনেকটা পাল্টে গেল ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার মোহাম্মদ পুর গ্রামের সানা উল্লা নামে এক বাহরাইন প্রবাসীর।

বাহরাইন ফাইনেন্সিং কোম্পানি (বিএফসি) এক্সচেঞ্জ, শেখ হামাদ রোড মানামা ব্রাঞ্চ থেকে কিছু দিন আগে দেশে টাকা পাঠান সানা উল্লাহ।

ব্রাঞ্চে কর্মরত সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট অফিসার (বাংলাদেশ শাখার প্রধান) সবুজ মিলন জানান, বরাবরের মতো গত ১১ মে থেকে ১৩ জুন পর্যন্ত একটি অফার দেয় বিএফসি কোম্পানি। গত ১৩ এপ্রিল র‌্যাফেল ড্র হলে প্রথম পুরস্কার হিসেবে গাড়ি পেয়েছেন বাংলাদেশি প্রবাসী সানা উল্লাহ। অন্যান্য পুরস্কারের মধ্যে দুই গ্রাম করে স্বর্ণ পেয়েছেন প্রায় ২০০ জন। একজন বাংলাদেশি হিসেবে নিজ কর্মস্থলে বাংলাদেশিকে পুরস্কৃত হতে দেখে আমি আনন্দিত।

গত ১৬ জুন গাড়িটি হস্থান্তর করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাহরাইন ফাইনেন্সিং কোম্পানির সিইও দিপক নেয়ার, সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট অফিসার সবুজ মিলন ও মার্কেটিং ম্যানেজার আরুন বিশ্বনানন্দন।