বাংলাদেশি শ্রমিকরা দেশে কোয়ারেন্টাইন শেষে সৌদি আরবে গেলে সে দেশে কোয়ারেন্টাইনের বাধ‌্যবাধকতা থেকে অব্যাহতি দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

শনিবার (১২ জুন) সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদের সঙ্গে ফোনে আলাপকালে এ অনুরোধ জানান তিনি।

এতে বাংলাদেশি শ্রমিকদের অর্থ সাশ্রয় হবে বলে উল্লেখ করেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বিষয়টি বিবেচনার করা হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে যাওয়ার পর সাত দিন বাধ্যতামূলকভাবে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হয়। করোনা মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশি শ্রমিকদের সৌদি আরবে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ায় সে দেশের সরকারকে ধন্যবাদ জানান ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

এ সময় ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ জানান, এ বছর করোনা মহামারির কারণে অন্য দেশ থেকে কোনো ব্যক্তি সৌদি আরবে গিয়ে হজ পালন করার সুযোগ পাবেন না। তবে সৌদি নাগরিকের পাশাপাশি সে দেশে অবস্থানরত অন্য দেশের নাগরিকরা হজ পালনের সুযোগ পাবেন।

ড. মোমেন বলেছেন, ‘মিয়ানমারের বাস্তুচ্যূত রোহিঙ্গাদের নিরাপদ ও মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসনকে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে।’ এ বিষয়ে তিনি সৌদি আবরের সহযোগিতা কামনা করেন।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালে তিনি তা গ্রহণ করেন এবং সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশ সফর করবেন বলে জানান।