‘অ্যানম’ নামক মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে গত তিন বছরে বিশ্বজুড়ে কয়েকশ অপরাধীকে গ্রেফতার করেছে অস্ট্রেলিয়া ও ইউরোপীয় পুলিশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন মঙ্গলবার (৮ জুন) এক টেলিভিশন ভাষণে এসব তথ্য জানান।

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসির বরাতে জানা যায়, মঙ্গলবার (৮ জুন) এফবিআই কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এই অ্যাপের মাধ্যমে ১৮টি দেশে সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের কয়েকশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এফবিআই পরিচালিত এই অভিযানটির নাম ছিল ‘অপারেশন ট্রোজান শিল্ড’। এর মাধ্যমে বিশেষ এনক্রিপ্টেড নেটওয়ার্কের মধ্যে অনুপ্রবেশ করে কর্মকর্তারা সেটির নিয়ন্ত্রণ নেন। বিশ্বজুড়ে অভিযান চালিয়ে সংঘবদ্ধ অপরাধীদের প্রায় ৮০০ জনেরও বেশি সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং ১৪৮ মিলিয়ন ডলার নগদ ও প্রচুর পরিমাণে মাদক জব্দ করা হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানান।

অস্ট্রেলিয়ান ফেডারেল পুলিশ কমিশনার রিস কার্শা জানান, জার্মানিতে ৭৫ জন সুইডিশ নাগরিকের সঙ্গে আরও ৬০ জন, হল্যান্ডেও ৪৯ জন এবং নিউজিল্যান্ডে ৩৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়াও ওই অ্যাপের তথ্যের মাধ্যমে অবৈধ মোটরসাইকেল গ্যাংয়ের সদস্যসহ ২২৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে জানিয়েছেন এফবিআই কর্মকর্তারা।

এই অভিযানটির পরিকল্পনা হয় মূলত ২০১৮ সালে। অস্ট্রেলিয়ান পুলিশ ও এফবিআই সংঘবদ্ধভাবে এই পরিকল্পনা করে। মার্কিন কর্মকর্তাদের নিয়ন্ত্রণে আসার পর মোবাইল অ্যাপ অ্যানোমের মাধ্যমে তদন্তকারীরা সংঘবদ্ধ অপরাধীদের খুঁজতে শুরু করেন। এই অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে সংগঠিত অপরাধের উপর নজর রাখতে এনক্রিপ্টেড বার্তা পড়া সম্ভব হয়। এছাড়া অ্যানম অ্যাপটি ব্যবহার করে অপরাধীদের অবস্থান ও তাদের যে কোনো ধরনের ডিজিটাল যোগাযোগের সংকেত তাৎক্ষনিক পাওয়া যায়।