বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতির দেশগুলোর জোট জি-সেভেনের অর্থমন্ত্রীদের বৈঠকে বহুজাতিক কোম্পানির ওপর কর আরোপ নিয়ে এক ঐতিহাসিক মতৈক্য হয়েছে। এখন থেকে এসব কোম্পানিকে ন্যূনতম ১৫ শতাংশ হারে করপোরেট কর দিতে হবে। শনিবার (৫ জুন) লন্ডনে জি-৭-এর অর্থমন্ত্রীদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। টেক জায়ান্ট আমাজন ও গুগলের মতো কোম্পানিও নতুন এই করের আওতায় আসবে। খবর বিবিসির।

এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে সরকারগুলোর হাতে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার আসবে। ফলে দেশগুলোর পক্ষে করোনা মহামারি মোকাবিলায় ব্যয় সংকুলানের নতুন পথ খুলে যাবে। অন্যান্য দেশও যাতে এই পথ অবলম্বন করে, সে লক্ষ্যে তাদের ওপর চাপ সৃষ্টি করা হবে। আগামী মাসে জি-২০-এর বৈঠকেও বিষয়টি আলোচনায় উঠবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে ব্যবসায়িক কার্যক্রম চালানো বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর ওপর কর আরোপ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে নানামুখী চ্যালেঞ্জের মুখে ছিল দেশগুলো। আমাজন ও ফেসবুকের মতো প্রযুক্তি করপোরেশনগুলোর বিস্তৃতিতে এই চাপ আরও বাড়ছিল।

এখন কোম্পানিগুলো যেসব দেশে তুলনামূলক কম করপোরেট ট্যাক্স রয়েছে, সেসব দেশে স্থানীয় শাখা খুলতে পারে এবং সেখানে মুনাফা ঘোষণা করতে পারে। ফলে সেখানে তাদের শুধু স্থানীয় হারে কর দিয়ে গেলেই চলে। এমনকি সেখানে উৎপাদিত পণ্য অন্য কোনো দেশে বিক্রি করে এই অর্থ এলেও তারা তা করতে পারে। বৈধভাবেই কোম্পানিগুলো এই সুবিধা নিচ্ছে।

চুক্তিতে দুভাবে এটা বন্ধ করার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রথমত, জি-৭ চায় সারা বিশ্বে এসব কোম্পানির জন্য একটি ন্যূনতম করহার নির্ধারণ হোক। দ্বিতীয়ত, কোম্পানিগুলো যেসব দেশে তাদের পণ্য বা সেবা বিক্রি করবে, সেসব দেশেও তারা কর দিক।