জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থা ইউনেস্কোর সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্য শীর্ষক ২০০৫ কনভেনশনের আন্তঃরাষ্ট্রীয় কমিটিতে প্রথমবারের নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ। কনভেনশনের ৮ম সাধারণ সভায় শুক্রবার (৪ জুন) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে আগামী ২০২১-২০২৫ মেয়াদের জন্য সর্বসম্মতিক্রমে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়। আজ শনিবার বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ খবর জানিয়েছে।

এতে বলা হয়, গত ১-৪ জুন ভার্চুয়ালি কনভেনশনের ৮ম সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ৪ জুন অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ২৪ সদস্য রাষ্ট্রের মধ্যে ১২ সদস্য রাষ্ট্র পরবর্তী চার বছরের জন্য নির্বাচিত হয়। দেশগুলো হলো–বাংলাদেশ, ফ্রান্স, নরওয়ে, জর্জিয়া, সার্বিয়া, কিউবা, জামাইকা, ভিয়েতনাম, বুরুন্ডি, মাদাগাস্কার, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ফিলিস্তিন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ২০০৫ কনভেনশনের মাধ্যমে ইউনেস্কোতে সৃজনশীল অর্থনীতি ক্ষেত্রের কার্যক্রম সমন্বিত হয়। ‘সৃজনশীল অর্থনীতি ক্ষেত্রে ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্তর্জাতিক পুরষ্কার’ প্রবর্তনের মাধ্যমে বাংলাদেশ এ বিষয়ে বৈশ্বিক পরিমণ্ডলে নেতৃত্বের অবস্থানে এসেছে। তাই আন্তঃরাষ্ট্রীয় কমিটিতে বাংলাদেশের নির্বাচিত হওয়ার তাৎপর্য আছে।

ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও ইউনেস্কোতে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি কাজী ইমতিয়াজ হোসেন ২০০৫ কনভেনশনের সব সদস্য রাষ্ট্রকে বাংলাদেশের প্রতি আস্থা রাখার জন্য ও আন্তঃরাষ্ট্রীয় কমিটিতে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ দেওয়ায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি ২০০৫ কনভেনশনের বাস্তবায়নে বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতির কথা তুলে ধরেন।

সাধারণ সভার সমাপনী বক্তব্যে ইউনেস্কোর সংস্কৃতি সেক্টরের সহকারী মহাপরিচালক আর্নেস্টো রেনাটো বাংলাদেশকে সৃজনশীল অর্থনীতি ক্ষেত্রে ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্তর্জাতিক পুরষ্কার প্রবর্তনে এগিয়ে আসায় ধন্যবাদ জানান।