কুমিল্লার লাকসামে পরকীয়ার টানে স্ত্রী এক প্রবাসীর সঙ্গে ‘উধাও’ হওয়ায় থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন স্বামী। অভিযোগপত্রে ওই গৃহবধূ ১০ লাখ টাকা এবং পাঁচ ভরি স্বর্ণ নিয়ে গেছে উল্লেখ করা হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ওই গৃহবধূর স্বামী মাইক্রোবাসচালক। ১৪ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে দুটি সন্তান রয়েছে। গত ১৯ মে তার স্বামী গাড়ি নিয়ে ভাড়া নিয়ে যান। পরে ডাক্তার দেখানোর নাম করে ওই গৃহবধূ লাকসামে যান। দীর্ঘ সময় বাড়িতে না ফেরায় গৃহবধূর ভাই তার বোনের জামাইকে বিষয়টি জানান।

এর আগেও ওই গৃহবধূ একবার উধাও হয়েছিলেন। সে সময় তার স্বামী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে পুলিশ মোবাইল নম্বর ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে তাকে উদ্ধার করে।

এলাকাবাসী জানায়, ওই গৃহবধূর সঙ্গে লাকসামের গাইনেরডহরা গ্রামের হারুনুর রশিদের ছেলে প্রবাসী শরিফ মিয়ার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয়। একপর্যায়ে দুজনের মধ্যে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ বছরের শুরুর দিকের শরীফ দেশে ফেরেন। গত জানুয়ারি মাসে ওই গৃহবধূ শরীফের সঙ্গে পরিবারের অগোচরে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় লাকসাম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করলে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে।

লাকসাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্ত (ওসি) মো. মেজবাহ উদ্দিন ভূঁইয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন জানান, এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তাদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।