বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে শেষ হলো ‘উত্তর আমেরিকা বাংলা সাহিত্য সম্মেলন ২০২১’। ‘বিশ্ব ব্যাপী বাংলা সাহিত্যের সেতুবন্ধন’-এ স্লোগানকে সামনে রেখে গত ২৭ ও ২৮ মার্চ (শনি ও রবিবার) ভার্চুয়ালি এ সম্মেলন সফলতার সাথে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উত্তর আমেরিকা বাংলা সাহিত্য সম্মেলন আয়োজিত এই সম্মেলনের স্বাগতিক সংগঠন ছিল বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন অব ফ্লোরিডা।

দুই দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় সকাল সন্ধ্যা মিলিয়ে চারটি পর্বে সর্ব মোট প্রায় ২২ ঘন্টার অনুষ্ঠান প্রদর্শিত হয়। অনলাইনের মাধ্যেমে বিশ্বব্যাপী এ অনুষ্ঠান প্রচার করে- টাইমস ২৪ টিভি।

২৭ মার্চ (শনিবার) সকাল ১০টায় (ইর্স্টান সময়ানুযায়ী) কানাডার টরেন্টো থেকে উদ্বোধন করেন একুশে পদক প্রাপ্ত কবি আসাদ চৌধুরী। সম্মেলনের প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম.শহিদুল ইসলাম।

বিশ্বের বিভিন্ন স্থান থেকে বরেণ্য ব্যাক্তিত্ববর্গ শুভেচ্ছা পাঠান। তাদের মধ্যে অন্যতম কানাডায় অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশনার ড. খলিল রহমান, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা আতাউর রহমান, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবিবুল্লাহ সিরাজি, কানাডার পার্লমেন্ট সদস্য ডলি বেগম, একুশে পদক প্রাপ্ত ড. নূরান নবী, একুশে পদক প্রাপ্ত আবৃত্তিকার ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, নজরুল বিশেষজ্ঞ ড. গুলশান আরা কাজী, নাট্য ব্যাক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, টরেন্ট কন্সাল জেনারেল নাইম উদ্দিন আহমেদ, একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রেস ইন্সটিটিটের পরিচালক জাফর ওয়াজেদ, ডল হলেও , কাউন্টি কমিশনার , ড. ইকোল, ডীন লাকি বিশ্ববিদ্যালয়, পাল্লা আইকন, ( ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস এক্সপার্ট)প্রমুখ।

উত্তর আমেরিকা বাংলা সাহিত্য সম্মেলন কমিটি ২০২১ এর সম্মেলনে তিন ব্যাক্তিত্বকে সম্মাননা প্রদান করেছে। তাদের মধ্যে রয়েছেন- একুশে পদক প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. নূরান নবী, নজরুল বিশেষজ্ঞ ড. গুলশান আরা কাজী ও শিল্পী তাজুল ইমাম। প্রতিটি পর্বে সম্মেলনের জন্য নির্মিত ভাব সঙ্গীতের মাধ্যেমে পর্ব শুরু হয়। সমগ্র অনুষ্ঠানের মধ্যে আলোচনা, সেমিনার, কবিতা আবৃত্তি, নৃত্য, সঙ্গীত, নাটক, মূকাভিনয় ও পুতুল নাচের মত আয়োজন ছিল।

সম্মেলনের আয়োজনে উন্নত প্রযোজনা সকলের প্রশংসা কুড়িয়েছে। ভার্চুয়াল প্রযোজনায় এডিটিং এ ছিলেন টিপু আলম এবং সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন সংগঠনের সভাপতি আতিকুর রহমান আতিক। সদস্য সচিব ছিলেন কাজী মশহুরুল হুদা এবং প্রধান সমন্বয়কারী ছিলেন সেলিম চৌধুরী। স্বাগতিক সংগঠন বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন অব ফ্লোরিডার সাংস্কৃতিক পর্বের দায়িত্বে ছিলেন চিত্রা সুলতানা। সম্মেলনে নুতন প্রজন্মের অংশগ্রহণ ছিল উৎসাহ ব্যাঞ্জক।

উল্লেখযোগ্য অনুষ্ঠানমালায় ছিল- প্রবাসে বাংলা সাহিত্য চর্চা ও প্রসার (সঞ্চালনায় ড. নূরাণ নবী), কবিতার হিরন্ময় প্রহর, আবৃত্তিকারের আবৃত্তি অনুষ্ঠান (সঞ্চালনায়) লুৎফুন নাহার লতা। আলোচনা পঞ্চ কবি সাহিত্য ও সংস্কৃতি (সঞ্চালনায়) নারর্গিস চৌধুরী। বাংলাদেশের মূকাভিনয়ের আধুনিক ধারা (সঞ্চালনায়) মাইম আইকন কাজী মশহুরুল হুদা, নজরুল আধ্যাত্যবাদ (সঞ্চালনায়) ড. গুলশান আরা কাজী। বিশ্বায়নে বাংলা সাহিত্য (সঞ্চালনায় কবির কিরণ), মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক আলোচনা (সঞ্চালনায় ড. নূরান নবী), প্রকাশকদের আলোচনা- সাহিত্যের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ এবং ললিত কলা।

দুই দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানে বিশেষ উল্লেখযোগ্য আলোচনা আলেখ্য ছিল নজরুল ও রবিন্দ্রনাথের উপর নির্মিত অনুষ্ঠান নজরুল আধ্যাত্মবাদ ও মনস্তত্তে রবীন্দ্রনাথ ( পরিকল্পনা ও উপস্থাপনায় ড. রুকসানা শরীফ এনি ) এছাড়াও ছিল ইউরোপের কবি এবং শিল্পীদের অনুষ্ঠান ( উপস্থাপায় একুশেরপদকপ্রাপ্ত কবি পিয়ারী ), আলোচনা কবিতার কৌশল (সঞ্চালনায়) মুহম্মদ নূরুল হুদা, নাটক ও সাহিত্য নিয়ে আলোচনা কাজী রফিক।

সমগ্র অনুষ্ঠানে আবৃত্তি ব্যাক্তিত্ব ছিলেন- ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, চন্দ্রিমা, মলি দত্ত, সম্পাব্যাটবল, আফরোজা বানু, কাজী মশহুরুল হুদা, আতিকুর রহমান আতিক, লুতফুন নাহার লতা, কেয়া রোজারিও, ডা. রুকসানা প্রমুখ।

বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব পারফর্মিং আর্ট এণ্ড মিডিয়া, ডালাস এর প্রযোজনা ছিল পরিচ্ছন্ন। এছাড়া কারিগরের গায়েন দল ও নৃত্যে পূর্বাশা রহমান, তাজরি আওলাদ, আরশি আওলাদ, শ্রাবনী হুমাইরা, দেবযানী, পবিত্রা, সুন্দর সবর্ণ প্রমুখ শিল্পীদের প্রদর্শন ছিলো চোখে পড়ার মত।

সঙ্গীতে ছিলেন ড. লীনা তাপসী, দেবনীলা সূর, তাজুল ইমাম প্রমুখ। প্রখ্যাত উপন্যাসিক সেলিনা হোসেনের রবীন্দ্রনাথের উপর আলোচনা ছিল চমৎকার।

অনুষ্ঠানের কারিগরী তত্ত্বাবধায়নে ছিলেন- বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ডা: মাহাবুব বৈদেশী, ড. রুকসানা শরীফা প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠানের নন্দিত উপস্থাপনায় ছিল নন্দিনী ভৌমিক, শরীফ তুহিন ও লিখা রহমান।

ভার্চুয়ালি এ আয়োজন দীর্ঘ সময় ধরে চললেও দর্শক শ্রোতাদের মধ্যে কোন প্রকার বিরক্তির কারণ হয়নি। এক কথায় সমগ্র অনুষ্ঠান ছিলো পরিচ্ছন্ন ও পরিকল্পনা মাফিক। দর্শক প্রশংসায় ছিল সকল প্রযোজনা।