হলিউডের আলোচিত দম্পতি ব্র্যাড পিট ও অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। ভক্তরা ভালোবেসে তাদের ডাকেন ‘ব্র্যাঞ্জেলিনা’।

বেশ কয়েক বছর প্রেম করার পর ২০১৪ সালে বিয়ে করেন ব্র্যাড-জোলি জুটি। কিন্তু বিয়ের মাত্র দুই বছর পরই বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন তারা, যা পরবর্তী সময়ে আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। ব্র্যাডের বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ তোলেন জোলি। এর মধ্যে ‘ডমেস্টিক ভায়োলেন্স’ বা ‘গৃহ নির্যাতনের’ কথাও উল্লেখ রয়েছে।

সম্প্রতি আদালতে এ বিষয়ে কিছু নথি জমা দিয়েছেন জোলি। এতে তিনি জানান, প্রয়োজনে সন্তানেরাও ব্র্যাডের বিরুদ্ধে নির্যাতনের প্রমাণ দিতে প্রস্তুত।

এর আগেও এ বিষয়ে প্রমাণ জমা দিয়েছেন জোলি। সম্প্রতি নতুন করে কয়েকটি নথি জমা দেন তিনি।

যদিও ব্র্যাডের ঘনিষ্ঠ এক সূত্র জানিয়েছেন, ‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন হলিউড’ সিনেমাখ্যাত এই অভিনেতা মনে করছেন, জোলি যে প্রমাণের কথা বলছেন তা বিশেষ কিছু নয়। তাকে আঘাত করার জন্যই এমনটা করছেন এই অভিনেত্রী। এখানেই শেষ নয়, নিজের দিকে মামলার রায় দেওয়ার জন্য জোলি সন্তানদের ব্যবহার করছেন বলে তার দাবি।

‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস স্মিথ’ সিনেমার সেটে ব্র্যাড পিট ও অ্যাঞ্জেলিনা জেলির পরিচয়। পরবর্তী সময়ে তাদের প্রেম ও বিয়ে হয়। তাদের ছয় সন্তান—ম্যাডক্স, প্যাক্স, জাহারা, শিলোহ, নক্স, ভিভিয়েন। এরমধ্যে প্রথম তিন সন্তানকে দত্তক নিয়েছেন তারা। ব্যাড পিটের সঙ্গে সম্পর্ক শুরুর আগেই ম্যাডক্স ও জাহারাকে দত্তক নিয়েছিলেন জোলি। তখন ব্যাড পিটও দত্তক সন্তান নেন।