মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে কানাডার টরন্টো শহরে স্বেচ্ছায় শুরু হওয়া বছরব্যাপী রক্তদান কর্মসূচি আজ শেষ হচ্চে। জাতির পিতার ১০১তম জন্মদিনে সমাপ্ত হচ্ছে টরন্টো প্রবাসী বাংলাদেশিদের এই আয়োজন।

গত বছর ১৭, ১৯ ও ২১ মার্চ স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচিতে শতাধিক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক নিবন্ধন করেছিলেন। কোভিড শুরুর প্রথমদিকে নানা বিধিনিষেধ আরোপ হওয়ায় নিবন্ধন করা অনেকেই রক্তদান করতে পারেন নি।

এই আয়োজনে সহযোগী হিসেবে রয়েছে কানাডিয়ান ব্লাড সার্ভিসেস, প্রজেক্ট লন্ডন ১৯৭১, মুক্তিযুদ্ধ ই-আর্কাইভ ও ক্যানাটা ফাউন্ডেশন। কর্মসূচির উদ্যোক্তা ও সমন্বয়কারী ড. সুশীতল চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও দেশের মানুষের স্বাধীনতার জন্য আজীবন সংগ্রাম করেছেন। ৭ই মার্চে দেওয়া তার ঐতিহাসিক ভাষণ বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি পেয়েছে। টরন্টোতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা জাতির পিতার প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা জানাতে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করছিলাম আমরা। আজ ১৭ মার্চ এই আয়োজনের সমাপনী রক্তদান। কানাডিয়ান ব্লাড সার্ভিসেস-এর ব্লুর ইয়াং ২ ব্লুর স্ট্রিট ইষ্ট সেন্টারে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত রক্তদান করা যাবে।
অসাধারণ এমন আয়োজনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন টরন্টো সিটি মেয়র জন টরি, ওন্টারিও প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ড, কানাডার জননিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী বিল ব্লেয়ার, টরন্টোতে বাংলাদেশ কনসাল জেনারেল নাঈম উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপিপি ডলি বেগম, কাউন্সিলর গ্যারি ক্রফোর্ড প্রমুখ।

বাংলাদেশ কনসাল জেনারেল নাঈম উদ্দিন আহমেদ বলেন, জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে স্বেচ্ছায় রক্তদানের চেয়ে মহৎ কর্মসূচি আর কী হতে পারে। করোনার নানা বিধিনিষেধের কারণে অনেক উদ্যোগ আলোর মুখ দেখেনি। রক্তদান এই মহতী আয়োজনের সমাপনী সকল নিয়ম নীতি পালন করা হবে। উদ্যোক্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা এমন অনন্য আয়োজনের জন্য।