ট্যাক্সি ড্রাইভারদের আর্থিক সংকট মোচনের বিধি সম্বলিত করোনা স্টিমুলাস বিল তথা ‘আমেরিকা উদ্ধার পরিকল্পনা’ অবিলম্বে পাশের দাবিতে ৩ মার্চ ট্যাক্সি ড্রাইভাররা বিক্ষোভ করেছেন ক্যাপিটল হিলের সামনে। নিউইয়র্ক ট্যাক্সি ওয়ার্কার্স এলায়েন্সের নেতৃত্বে শতাধিক ট্যাক্সি নিয়ে ড্রাইভাররা রাজধানী ডিসিতে এসেছিলেন। নেতৃত্বে ছিলেন এলায়েন্সের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ভৈরবী দেশাই। সমন্বয়ে ছিলেন এলায়েন্সের লেবার অর্গানাইজার বাংলাদেশি আমেরিকান টিপু সুলতান।

উল্লেখ্য, নিউইয়র্ক সিটিতে কর্মরত দু’লাখ ট্যাক্সি (ইয়েলো, উবার, লিফ্ট, গ্রিণক্যাব, ব্ল্যাককার, লিমুজিন ইত্যাদি) ড্রাইভারের প্রায় সকলেই করোনার তাণ্ডবে কঠিন সংকটে নিপতিত হয়েছেন পরিবার-পরিজনসহ। বিশেষ করে যারা ট্যাক্সি-ম্যাডেলিয়নের মালিক হয়েছিলেন মোটা অর্থ বিনিয়োগ ঘটিয়ে, তারা ব্যাংক থেকে নেয়া ঋণের কিস্তি পরিশোধে সক্ষম না হওয়ায় এ যাবত ১০ ট্যাক্সি ড্রাইভার আত্মহত্যা করেছেন। শতাধিক ড্রাইভারের বসতবাড়ি নিলামে উঠেছে। আবার কেউ কেউ দেউলিয়া ঘোষণার মধ্য দিয়ে নিজেকে দায়মুক্তির পন্থা অবলম্বন করেছেন।

এমন কঠিন সংকট থেকে মুক্তির জন্য নিউইয়র্ক সিটি মেয়র বিল ডি ব্লাসিয়ো এবং ইউএস সিনেটের বর্তমান লিডার সিনেটর (নিউইয়র্ক-ডেমোক্র্যাট) চাক শ্যুমারও অঙ্গীকার করেছেন এমন নাজুক অবস্থা থেকে ট্যাক্সি ড্রাইভারদের উদ্ধার কল্পে কার্যকর একটি পদক্ষেপ গ্রহণের। ইউএস সিনেটে পাশের প্রক্রিয়ায় থাকা জো-বাইডেনের ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের করোনা স্টিমুলাস বিলে ট্যাক্সি ড্রাইভারদের উদ্ধারের প্রসঙ্গ রয়েছে বলে জানান টিপু সুলতান। তবে সেই অর্থ নির্দিষ্ট করতে হবে দেনায় জর্জরিত ট্যাক্সি ড্রাইভারদের জন্য। এজন্যেই তারা সিনেট ভবনের বাইরে বিক্ষোভ করলেন।
উল্লেখ্য, এ দাবিতে এর আগে নিউইয়র্ক সিটিতে বেশ কয়েকটি শোভাযাত্রা হয়েছে। সে সময় সিনেটর শ্যুমার অঙ্গীকার করেছেন দুর্দশা থেকে ড্রাইভারদের উদ্ধারের। অর্থাৎ ব্যাংকের সমুদয় দায় থেকে অব্যাহতি প্রদান করার।