লিবিয়া উপকূলে একটি জাহাজডুবির ঘটনায় কমপক্ষে ৪১ অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সময় বুধবার আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) ও শরণার্থী বিষয়ক জাতিসংঘ হাইকমিশনার (ইউএনএইচসিআর) এ কথা জানিয়েছে।

ইউএনএইচসিআর ও আইওএমের বিবৃতিতে বলা হয়, বাণিজ্যিক একটি জাহাজের সাহায্যে উদ্ধার করা ৭৭ অভিবাসন প্রত্যাশীর ভাষ্য অনুযায়ী, নৌযানটিতে মোট ১২০ জনের বেশি যাত্রী ছিল। এদের মধ্যে ছয় নারী ও চার শিশু রয়েছে।

ছয় নারীর মধ্যে একজন গর্ভবতী বলে জানা যায়। নৌযানটি গত ১৮ ফেব্রুয়ারি লিবিয়া থেকে রওনা দেয়।
বিবৃতিতে বলা হয়, ‘লিবিয়া হয়ে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে এ পথে ভ্রমণ করা হাজার হাজার মানুষকে মানব পাচারকারী চক্রের ও মিলিশিয়াদের হাতে পড়ে অবর্ণনীয় নিষ্ঠুরতার শিকার হতে হয়।’

২০১১ সালে লিবিয়ার নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফির পতনের পর উত্তর আফ্রিকার এ দেশের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তাহীনতা ও বিশৃঙ্খলার কারণে হাজার হাজার অভিবাসী লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপের কোনো দেশে চলে যেতে চান । এসব অভিবাসন প্রত্যাশীর বেশির ভাগই আফ্রিকান।

বিবৃতিতে বলা হয়, চলতি বছরের এ পর্যন্ত ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে প্রায় ১৬০ জন অভিবাসী প্রাণ হারিয়েছে এবং তিন হাজার পাঁচশ’র বেশি মানুষকে উদ্ধার করে লিবিয়ায় ফেরত পাঠানো হয়েছে।