করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর আগে দেশে এসে আটকাপড়া লিবিয়া প্রবাসীদের ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছে দেশটিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস। আজ বৃহস্পতিবার এক বার্তায় লিবিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাস এ তথ্য জানায়।

বার্তায় বলা হয়, ‘লিবিয়ায় বৈধভাবে কর্মরত প্রবাসীদের মধ্য থেকে অনেকে করোনাভাইরাস মহামারি পূর্ববর্তী সময়ে ছুটিতে দেশে গিয়ে আটকে পড়েন। মহামারি করোনার ঝুঁকি এড়াতে লিবিয়া সরকার গত মার্চ মাস থেকে বিমানবন্দর ও স্থলবন্দর বন্ধসহ বিভিন্ন বিধিনিষেধ আরোপ করে। পরবর্তীতে লকডাউন ও কারফিউ জারির মাধ্যমে লিবিয়ার সরকার করোনার বিস্তার রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে। দীর্ঘদিন ধরে বিমান চলাচল বন্ধ থাকার পর সাম্প্রতিক সময়ে লিবিয়া সরকার সীমিত পরিসরে বিমানবন্দর চালু করেছে। কিন্তু দেশে ছুটিতে গমন করা অনেক প্রবাসী ভাইদের ভিসা/এন্ট্রি পারমিট-এর মেয়াদ ইতোমধ্যে উত্তীর্ণ হয়ে গেছে।’

দূতাবাস বলছে, ‘এই পরিপ্রেক্ষিতে দূতাবাসের পক্ষ হতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে এবং গত ২২ নভেম্বর লিবিয়ার শ্রম মন্ত্রণালয়ের কর্মসংস্থান অধিদফতরের মহাপরিচালকের সঙ্গে রাষ্ট্রদূত বৈঠক করেন। বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনার পর কর্মসংস্থান অধিদফতরের মহাপরিচালক আটকেপড়া বাংলাদেশিদের ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির ব্যাপারে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দেন।’
এ ক্ষেত্রে দেশে আটকেপড়া কর্মীদের স্ব স্ব নিয়োগকর্তারা সরাসরি ওই অধিদফতরে আবেদন জানালে লিবিয়ার ইমিগ্রেশন অধিদফতরের মাধ্যমে তাদের ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির ব্যবস্থা করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

এমতাবস্থায় দেশে আটকে পড়া প্রবাসীদের মধ্য হতে পুনরায় লিবিয়ায় যেতে যাওয়া আগ্রহী প্রবাসীদের দ্রুত তাদের নিয়োগকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে দূতাবাস।

এ জন্য দূতাবাসের +২১৮৯১৬৯৯৪২০২ ও +২১৮৯১৬৯৯৪২০৭ মোবাইল নম্বর এবং libyalw@yahoo.com ই-মেইলে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।